নিউজস্বাস্থ্য

নিজের সন্তানকে ৫ বছর বয়স হওয়ার আগেই অবশ্যই শেখান এই বিষয়গুলি! সন্তান হবে সেরার সেরা! জানুন বিস্তারিত।

নিজস্ব প্রতিবেদন :- আমরা প্রত্যেকেই চাই যে আমাদের সন্তান যাতে বড় হয়ে মানুষের মত মানুষ হয়। প্রতিনিয়ত বাবা-মায়েরা এই চেষ্টা করে চলে। কিন্তু কখনো কখনো এর সফলতা পাওয়া গেলও মাঝেমধ্যেই মেলে বিফলতা পাশাপাশি এমনটা মনে করা হয় যদি কোন সন্তানকে অতিরিক্ত মাত্রায় শাসনে রাখা হয় তাহলে সেটি এসে আয়ত্বের বাইরে চলে যায় একসময় কিন্তু বিজ্ঞানীরা জানাচ্ছেন যে পাঁচ বছরের মধ্যে সন্তানদেরকে এই সমস্ত শিক্ষাগুলি যদি আপনি প্রতিনিয়ত দেন তাহলে সেটি ভবিষ্যতে কাজে আসবে তার ক্ষেত্রে জেনে নিয়েছি শিক্ষা গু-লি কি কি।

সম্মান – মানুষের ব্যবহার তার পরিচয় হয়ে দাঁড়ায় একটা মানুষ কতখানি ভদ্র নম্র সেটা বোঝা যায় যে তিনি সামনে থাকা মানুষকে কতখানি সম্মান দিচ্ছেন বড়দেরকে সম্মান দেওয়া ছোটদের ছোটদের একটা নৈতিক কর্তব্য এবং এই কর্তব্য ছোটবেলা থেকেই আপনার শিশুর মনে গেঁথে দিতে হবে।

সততা – সততা হল মানব দেহের বা মনুষ্য প্রজাতির একমাত্র সবথেকে বড় মূল্যবান অহংকার। একদমই ঠিক শুনেছেন তাই আপনার বাচ্চাকে প্রথম থেকে শেখান যেন চেয়ে সত্য কথা বলে। মিথ্যে প্রশ্রয় যেন সে কোনদিন না নাই। যে কোন বিষয়ে সততাকে যেন সবার সামনে সত্যতা কে আঁকড়ে ধরতে পারে সে সে বিষয়ে প্রতিনিয়ত সেখানে তাকে।

দায়িত্ববোধ – কথাটা শুনলে কেমন একটা হাসি লাগলেও আপনার বাচ্চাকে ছোটবেলা থেকেই দায়িত্ববোধের শিক্ষা দেন। কারণ অনেক বাচ্চা ছেলে মেয়েরা নিজের খেলনা জামাকাপড় এমনকি বইখাতা ঠিকঠাক ভাবে গুছিয়ে রাখতে পারেনা। তার পাশাপাশি এলোমেলো করে দেয় সে সমস্ত জিনিসপত্র। তাই ছোটবেলা থেকেই বাচ্চাদেরকে শিক্ষা দেন যেন তার নিজের কাজ নিজে করতে পারে অন্যের উপর যেন না চাপিয়ে দেয়।

সংকল্প – সংকল্প ছাড়া কোন বাচ্চা তার কাজে সাফল্য অর্জন ক’রতে পারে না। এটি শুধু বাচ্চার ক্ষেত্রে প্রযোজ্য নয়। সংকল্প ছাড়া কেউ কোনদিন জীবনে সাফল্য অর্জন ক’রতে পারে নি। তাই এই বিষয়টির স’ঙ্গে ছোট থেকে বাচ্চাদের পরিচয় করে দিন।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button