নিউজপলিটিক্সরাজ্য

মুকুল রায়ের প্রত্যাবর্তন হতেই বিরাট রদবদল হতে চলেছে তৃণমূলে

নিজস্ব প্রতিবেদন: ভোট পর্ব মিটতেই তৃণমূলে বেশকিছু রদবদল করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। দলের সাংগঠনিক শক্তি সুদৃঢ় করতে বেশ কিছু পরিবর্তন করেছেন তিনি। মুকুল রায় তৃণমূল প্রত্যাবর্তন করার পর বেশ কিছু দায়িত্ব তাকে অর্পণ করা হয়েছে। এছাড়াও কোন নেতাকে কোন দিন তৃণমূল পাটি অফিসে যেতে হবে সেই বিষয়ে একটি নির্দেশিকা জারি করে দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।

আগামী ২০২৪ এর লোকসভা নির্বাচনে দিল্লির আসনকে নজরে রাখছে তৃণমূল। সেই লক্ষ্যে নিজেদের রাজনৈতিক কর্মসূচি সম্পাদন করছে তৃণমূল। প্রধানমন্ত্রী হিসেবে যদি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কে আসীন হতে হয় তাহলে বাংলার মোট ৪২ টি আসনে তাঁকে উল্লেখযোগ্য ফলাফল নিয়ে আসতে হবে সেটা সকলেই জানেন। ইতিমধ্যে তৃণমূলের সাংগঠনিক স্তরে এক ব্যক্তি এক পদ নিয়ম লাগু করেছেন মুখ্যমন্ত্রী।

আরও পড়ুন-এবার হাতজোড় করে ক্ষমা চেয়ে তৃণমূল থেকে বিজেপিতে ফিরলেন এক তৃণমূল নেতা।

এবার তিনি আরো কিছু রদবদল করেছেন।অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় কে করা হয়েছে সর্বভারতীয় সভাপতি । তার জায়গায় যুব তৃণমূল সভানেত্রীর দায়িত্ব পেয়েছেন সায়নী ঘোষ। গত ৫ ই জুন তৃণমূলের রাজ্যের কোর কমিটির বৈঠক সম্পন্ন হয়েছে।

এই বৈঠকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে যে জেলা সভাপতির পদ গুলিতে রদবদল আনতে হবে। সেই মর্মে আগামী কয়েকদিনের মধ্যেই নতুন জেলা সভাপতিদের নামের তালিকা চূড়ান্ত ভাবে ঘোষণা করতে চলেছে তৃণমূল এমনটাই জানা গেছে সূত্র মারফত।আগামী জুলাই মাসের প্রথম সপ্তাহেই হয়তো এই নতুন রদবদলের বিষয়টি চূড়ান্তভাবে সম্পন্ন হতে চলেছে। আগামী ২১ শে জুলাইয়ের আগে নিজেদের এই সাংগঠনিক রদবদলের মাধ্যমে দলকে আরও শক্তিশালী করে গড়ে তোলার লক্ষ্য নিয়েছে তৃণমূল।

আরও পড়ুন-মাস দুয়েকের মধ্যে প্রধানমন্ত্রীকে ৯ চিঠি রাজ্যের,একটাও উত্তর দেননি মোদি;ক্ষোভ নবান্নের !

আপাতত এই রদবদলের তালিকায় সৌমেন মহাপাত্র সহ জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক, স্বপন দেবনাথ , পার্থ চট্টোপাধ্যায় এবং আরো বিভিন্ন নেতার নাম উঠে আসছে। তবে এখনো পর্যন্ত চূড়ান্ত কোনো খবর পাওয়া যায়নি।

Related Articles

Back to top button