৬ মাসের মধ্যে উপনির্বাচন হবে না? নতুন ছক বিজেপির।

৬ মাসের মধ্যে উপনির্বাচন হবে না? নতুন ছক বিজেপির।

নিজস্ব প্রতিবেদন: ভবানীপুরের মাটিতে একুশের ভোটে বিপুল ভোটে জয় পেয়েছেন তৃণমূল প্রার্থী শোভন দেব চট্টোপাধ্যায়। বিজেপি প্রার্থী রুদ্রনীল ঘোষ কে বিপুল ভোটে পরাজিত করেছেন তিনি। কিন্তু তারপরেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কে ভবানীপুর আসনটি ছেড়ে দিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। উপনির্বাচনে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কে ওই আসন থেকে জয়লাভ করতে হবে। কারণ নন্দীগ্রামে শুভেন্দু অধিকারীর কাছে হেরে গিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাই ভবানীপুর আসনে উপনির্বাচনে মুখ্যমন্ত্রীকে জয়ী হতে হবে।

শোভন দেব চট্টোপাধ্যায় এই আসনটি স্বেচ্ছায় ছেড়ে দিয়েছেন বলে জানিয়েছেন তিনি। কিন্তু এর‌ই মধ্যে গুঞ্জন সৃষ্টি হয়েছে আরেকটি খবরকে কেন্দ্র করে।দিল্লি বিজেপি সূত্রে খবর পাওয়া গিয়েছে যে নির্বাচন কমিশনকে তারা পরামর্শ দিতে চলেছে যে করোনা আবহে আগামী ৬ মাসের মধ্যে যাতে উপনির্বাচন করা না হয়। কারণ আগামী ছয় মাসের মধ্যেই উপনির্বাচনে কোনো সীট থেকে জয়ী হয়ে আসতে হবে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। তাই তাঁকে বেকায়দায় ফেলার জন্যেই এই ছক কষছে বিজেপির একাংশ এমনটাই জানা গিয়েছে। ছয়মাসের মধ্যে উপনির্বাচনে যদি জয়লাভ করতে না পারেন মুখ্যমন্ত্রী, তাহলে তাঁর পদ থেকে তাঁকে ইস্তফা দিতে হবে।

আরও পড়ুন-সম্পূর্ণ পরিকল্পনা করে প্রধানমন্ত্রীর বৈঠক বয়কট করেছেন মুখ্যমন্ত্রী”- অভিযোগ ধনখড়ের

কিন্তু আইনি পথ অনুযায়ী তিনি আবার ইস্তফা দেওয়ার পরদিন শপথ নিয়ে তারপর আগামী ছয়মাস আবার উপনির্বাচনে লড়ার সুযোগ পেয়ে যাবেন। কমিশনকে ভোটের আবহে নির্বাচন করানোর জন্য সারা দেশবাসী যথেষ্ট দোষারোপ করেছে। এবার এই সুযোগটাই হাতছাড়া করতে চাইছে না বিজেপি। বিজেপির একাংশ জানিয়েছে যে, করোনার আবহে এইসময় যেন উপনির্বাচনে সায় না দেয় নির্বাচন কমিশন। তাই উপনির্বাচন প্রক্রিয়াকে আরো জটিলতর করতে চাইছে বিজেপির একাংশ। কিন্তু রাজ্যে বিজেপির অনেক নেতারাই এই পরিকল্পনায় সায় দিচ্ছেন না।