নিউজদেশপলিটিক্স

“ভ্যাকসিনের টিকা এবং সার্টিফিকেটে প্রধানমন্ত্রীর ছবি এবং বার্তা কেন?” বিরোধীদের উত্তর দিল কেন্দ্রীয় সরকার

নিজস্ব প্রতিবেদন: করোনার ভ্যাকসিন দেওয়া হচ্ছে সারা দেশজুড়ে। এখনো পর্যন্ত দেশের অর্ধেক মানুষকে ভ্যাকসিনের অপ্রতুলতার দরুন ভ্যাকসিন দেওয়া সম্ভব হয়ে ওঠেনি। তবে ভ্যাকসিন নেওয়ার পর সকলেই প্রায় কো’উইন অ্যাপ থেকে ভ্যাকসিনের সার্টিফিকেট ডাউনলোড করছেন। এই সার্টিফিকেটের তলায় প্রধানমন্ত্রীর ছবি দেওয়া থাকে এবং তার পাশে একটি বার্তা লেখা থাকে।

এবার প্রধানমন্ত্রীর ছবি এবং বার্তা দেওয়া সার্টিফিকেটে কেন দেওয়া থাকবে সেই বিষয়ে যথেষ্ট আওয়াজ তুলেছেন বিরোধীরা। বিরোধীরা অভিযোগ করছে যে এই ছবি এবং বার্তা দেওয়ার মাধ্যমে কেন্দ্রীয় সরকার নিজের প্রচার করে চলেছে। গতকাল বিরোধীদের সমস্ত প্রশ্নের উত্তর দিয়েছে কেন্দ্র। ভ্যাকসিনের সার্টিফিকেটে কেন প্রধানমন্ত্রীর ছবি এবং বার্তা দেওয়া থাকছে সেটা রাজ্যসভায় জানিয়ে দিয়েছেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী ভারতী প্রবীণ পাওয়ার ।

আরও পড়ুন-“অবৈধ বাংলাদেশি মুসলিমদের বিরুদ্ধে কড়া অ্যাকশন নেবো”- বললেন হিমন্ত বিশ্বশর্মা

তিনি তার প্রতুত্তর লিখিত আকারে পেশ করেছেন রাজ্যসভায়।গতকাল কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী বলেছেন,”জনস্বার্থে ভ্যাকসিনের সার্টিফিকেটে প্রধানমন্ত্রী ছবিসহ বার্তা ছাপা হয়েছে। ‌ কারণ ভ্যাকসিন নেওয়ার পর করোনার সংক্রমণ হবে না এটা অনেকেই ভেবে কোভিড বিধি মানছেন না । তাই ভ্যাকসিন নেওয়ার পরেও যাতে মানুষ সচেতন থাকেন তার জন্য প্রধানমন্ত্রীর ছবি এবং বার্তা দেওয়া ভ্যাকসিন সার্টিফিকেট দেওয়া হচ্ছে।

আরও পড়ুন-“মিথ্যা কথা বলছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়”- ভিডিও পোস্ট করে দাবি করলো ত্রিপুরা বিজেপি

জনস্বার্থে মানুষের মধ্যে সচেতনতা বোধ গড়ে তুলতে এই পদ্ধতি অবলম্বন করছে কেন্দ্রীয় সরকার।”বিরোধীরা অভিযোগ করেছেন আগামী দিনে ৫ রাজ্যে ভোট রয়েছে তাই নিজের প্রচার চালানোর জন্য ভ্যাকসিন সার্টিফিকেটে নিজের ছবি এবং বার্তা প্রচার করছেন প্রধানমন্ত্রী। তবে পশ্চিমবঙ্গ যেহেতু টাকা দিয়ে ভ্যাকসিন কিনছে তাই পশ্চিমবঙ্গের সার্টিফিকেটে প্রধানমন্ত্রীর বদলে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ছবি এবং বার্তা উল্লেখ করা রয়েছে। এছাড়াও বেশকিছু রাজ্য এই সার্টিফিকেট থেকে প্রধানমন্ত্রীর ছবি সরিয়ে দিয়েছে বলে জানা গিয়েছে।

Related Articles

Back to top button