নিউজপলিটিক্সরাজ্য

“ফিরহাদ-শান্তনুর বিরুদ্ধে কেন অতিমারি আইনে অভিযোগ দায়ের হয়নি?”- প্রশ্ন তুললেন সৌমিত্র খাঁ।

নিজস্ব প্রতিবেদন: কসবার ভুয়ো ভ্যাকসিনেশন কান্ডে ধৃত দেবাঞ্জনকে নিয়ে আরো ঘনীভূত হচ্ছে রহস্য। এদিকে দেবাঞ্জনের সাথে একাধিক তৃণমূল নেতা মন্ত্রীদের ওঠা বসা ছিল বলে দাবি করেছে বিজেপি। তৃণমূল মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম সহ সুব্রত মুখোপাধ্যায় এবং আরো বেশ কয়েকজন তৃণমূল নেতার সাথে দেবাঞ্জনের বেশ কয়েকটি ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রকাশিত হয়েছে। বিজেপির টুইটার হ্যান্ডেল থেকেও একটি ছবি প্রকাশ করা হয়েছে।

সেখানে ক্যাপশান দেওয়া হয়েছে, “ছবির ব্যক্তিটি হলেন দেবাঞ্জন দেব, ভুয়ো আইএএস অফিসার এবং জাল ভ্যাকসিন কাণ্ডে পুলিশের হাতে ধৃত। শাসক দলের প্রত্যক্ষ মদত না থাকলে এই জালিয়াতি করা সম্ভব নয়। চাল, ত্রিপল কেলেঙ্কারির পর এবার ভ্যাকসিন কেলেঙ্কারি। মানুষ যে তৃণমূল কে বিশ্বাস করেছিলো, তার এই প্রতিদান দিচ্ছে তারা।”

আরও পড়ুন-“জগদীপ ধনখড়কে পাগলা হাতির সাথে তুলনা করলেন মদন মিত্র।

এছাড়াও বিজেপির মিডিয়া সেলের প্রধান সপ্তর্ষি চৌধুরী একটি ছবি পোস্ট করেছেন যেখানে দেখা গিয়েছে তালতলায় রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের একটি মূর্তির ফলক উন্মোচনের অনুষ্ঠানে রাজ্যের পরিবহনমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম এবং সাংসদ সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়ের সাথে উপস্থিত রয়েছে দেবাঞ্জনের নাম। সেখানে দেবাঞ্জনের পরিচয় উল্লেখ করা হয়েছে পশ্চিমবঙ্গ সরকারের যুগ্ম সচিব হিসেবে।এই আবহের মধ্যে বিজেপি সাংসদ সৌমিত্র খাঁ গতকাল একটি টুইট করে লিখেছেন, “অতিমারি আইনে মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম, বিধায়ক অতীন ঘোষ এবং সাংসদ শান্তনু সেনের বিরুদ্ধে পুলিশে অভিযোগ দায়ের করা হবে না কেন ?

আরও পড়ুন-হিংসায় উস্কানি দেওয়ার অভিযোগে মিঠুন চক্রবর্তীকে আবার নোটিশ পাঠিয়ে করা হতে পারে জিজ্ঞাসাবাদ।

যদি কোনো নাগরিকের মৃত্যু হয় তাহলে তৃণমূল বিধায়ককে তার দায় নিতে হবে। তৃণমূলের আমলে চাল চুরি হয়েছে , আমফানের টাকা চুরি হয়েছে, এখন ভুয়ো টিকা দেওয়া হচ্ছে। কলকাতার এই ভুয়ো টিকার তদন্ত করানো উচিৎ কেন্দ্রীয় সংস্থাকে দিয়ে।”এই টুইটটির সাথে সৌমিত্র খাঁ একটি ছবিও পোস্ট করেছেন যেখানে এক‌ই ফ্রেমে দেখা যাচ্ছে পুর প্রশাসক ফিরহাদ হাকিম এবং দেবাঞ্জন দেবকে।

Related Articles

Back to top button