নিউজপলিটিক্সরাজ্য

“উপনির্বাচনে বিজেপি ভয় পাচ্ছে কেন ? ওদের গণতন্ত্রে বিশ্বাস নেই।”- বিজেপিকে কটাক্ষ দিলীপ ঘোষের।

নিজস্ব প্রতিবেদন: বিজেপি নেতা সায়ন্তন বসু কয়েকদিন আগেই বলেছিলেন, ‘করোনার এই ভয়াবহ পরিস্থিতিতে বিজেপি উপনির্বাচন চায়না।’ সায়ন্তন বসু এই মন্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে তৃণমূল সাংসদ সুখেন্দু শেখর রায় বলেছেন,”নির্বাচনের আগে ব্রিগেডের সমাবেশ করে করোনা বিধি লঙ্ঘন করেছে বিজেপি। এখন বিজেপি উপনির্বাচনে ভয় পাচ্ছে কেন? ওদের গণতন্ত্রের উপর কোন বিশ্বাস নেই তাই ওরা নির্বাচনে ভয় পাচ্ছে।

ওরা নিজেরাই করোনা বিধি ভেঙেছিল , এখন নোংরা রাজনীতি করছে। তৃণমূল ব্রিগেডে করোনা বিধি ভেঙে সমাবেশ করেনি, ওটা বিজেপিই করেছিলো। যার দরুণ ওই সমাবেশ থেকে ব্যাপক মাত্রায় করোনা ছড়িয়েছিলো। ব্রিগেড নিয়ে ওরা যথেষ্ট মাতামাতি করেছিলো।

আরও পড়ুন-ভুয়ো ভ্যাকসিনের ঘটনায় দেবাঞ্জনের আরো তিন সঙ্গীকে গ্রেফতার করলো পুলিশ।

তৃণমূল সরকার মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে করোনার এই দ্বিতীয় ঢেউয়ের মোকাবিলা করার দিকে যথেষ্ট উল্লেখযোগ্য পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। খুব শীঘ্রই রাজ্যে তথা দেশে তৃতীয় ঢেউ আছড়ে পড়েছে বলে সর্তকতা জারি করেছেন বিজ্ঞানীরা। এই পরিস্থিতিতে যারা ক্রমাগত হুমকি দিয়ে চলেছেন, তারা নিম্নরুচির মানসিকতার পরিচয় দিচ্ছেন এবং জনবিরোধী ভূমিকা তুলে ধরছেন। এই নোংরা রাজনৈতিক চিন্তা-ধারা সমাজকে কলুষিত করছে।”

আরও পড়ুন-“বিধানসভা চালানো হচ্ছে না শ্বশুরবাড়িতে জামাই ঠকানো হচ্ছে?”- মুকুল রায় এবং মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে কটাক্ষ তথাগত রায়ের

এই পরিপেক্ষিতে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন,”আমরা চাইছি খুব শীঘ্রই এই উপনির্বাচন মিটে যাক। অন্তত প্রচারের জন্য এক সপ্তাহ সময় দিলেই হবে।”উপ নির্বাচন প্রসঙ্গে বিজেপি নেতা সায়ন্তন বসু বলেছিলেন, “আবার একটা ভোট করার মাধ্যমে মানুষের বিপদ বৃদ্ধি করার কোন মানে হয় না। শুধুমাত্র একজন মুখ্যমন্ত্রী পদে আসীন থাকবেন বলে করোনার তৃতীয় ঢেউয়ের মধ্যেও আবার জনগণকে বিপদের মধ্যে ফেলে নির্বাচন হবে সেটা সম্পূর্ণ নিরর্থক।”

Related Articles

Back to top button