নিউজ

“কেন্দ্র ও রাজ্যের জন্য ভ্যাকসিনের আলাদা দাম কেন?” – বিরক্তি প্রকাশ করে বললো সুপ্রিম কোর্ট

নিজস্ব প্রতিবেদন: সারা দেশ জুড়ে ব্যাপক সন্ত্রাস চালাচ্ছে করোনা ভাইরাস। এখনো পর্যন্ত দেশের মানুষ গুলোকে ভ্যাকসিন দিয়ে উঠতে পারেনি কেন্দ্রীয় সরকার। একদিকে যেমন অক্সিজেনের যোগানে টান পড়েছে, তেমনি টান পড়েছে ভ্যাকসিন উৎপাদনেও। এদিকে কেন্দ্রীয় সরকার ঘোষণা করেছিলো যে, ভ্যাকসিন উৎপাদনকারী সংস্থা গুলো এবার বাজারে বিক্রি করতে পারবে তাদের উৎপাদিত ভ্যাকসিন।

এছাড়াও আগামী ১ লা মে থেকে রাজ্যগুলিতে ১৮ বছরের ঊর্ধ্বে যাদের বয়স তাদের সকলকে ভ্যাকসিন দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার।সিরাম ইনস্টিটিউট জানিয়েছিল তারা কেন্দ্রকে এই ভ্যাকসিন ডোজ প্রতি ১৫০ টাকা এবং রাজ্য এবং বেসরকারি হাসপাতালগুলো থেকে ৪০০ টাকা এবং ৬০০ টাকা নেবে। ভারত বায়োটেকের তৈরি ভ্যাকসিনের দাম ঠিক করা হয় কেন্দ্রের জন্য ৬০০ টাকা এবং রাজ্যের জন্য ১২০০ টাকা। তারপর ভারতের সাধারণ জনগণ থেকে শুরু করে বিদ্বজনেরা ভ্যাকসিনের দাম নিয়ে প্রবল সমালোচনা করতে শুরু করেন।

আরও পড়ুন-বেলেঘাটা আইডিতে বসলো ১৩ হাজার লিটারের অক্সিজেন ট্যাঙ্ক

দেশজুড়ে সমালোচনার মুখে পড়ে সিরাম ইনস্টিটিউটের সিইও আদার পুণাওয়ালা ঘোষণা করেছেন যে শীঘ্রই তারা দাম কমাবে তাদের ভ্যাকসিনের। তিনি টুইটারে লিখেছেন, “সিরাম ইনস্টিটিউট সিদ্ধান্ত নিয়েছে যে রাজ্যগুলির জন্য ভ্যাকসিন এর প্রতিটি ডোজের দাম ৪০০ টাকা থেকে কমিয়ে ৩০০ টাকা করা হচ্ছে।”এবার ভ্যাকসিনের দামের এই তারতম্য নিয়ে আজ বিরক্তি প্রকাশ করেছে সুপ্রিম কোর্ট।

কেন্দ্রীয় সরকারকে বেশ কয়েকটি প্রশ্নের মুখে পড়তে হয় সুপ্রিম কোর্টের কাছে। সুপ্রিম কোর্ট জানতে চেয়েছে যে “কেন্দ্র কেন ১০০% ভ্যাকসিনের ডোজ কিনে নিচ্ছে না ? রাজ্য এবং কেন্দ্রের কাছে ভ্যাকসিনের এই দামের তারতম্যের পিছনে কি যুক্তি রয়েছে ? স্বাধীনতার পরে আমরা ন্যাশনাল ইমিউনাইজেশন মডেল অনুসরণ করে কাজ করছি। কিন্তু এরপরে গরিব মানুষগুলো টীকার জন্য কীভাবে অর্থের জোগাড় করবেন সেই বিষয়টি ভেবে দেখা হচ্ছে না।”দেশের এই ভয়াবহ করোনা পরিস্থিতি নিয়ে স্বতঃস্ফূর্ত মামলা দায়ের করা হয়েছিল সুপ্রিমকোর্টে।

Related Articles

Back to top button