নিউজ

কারা কারা পাবেন প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনায় বাড়ি তৈরির টাকা? জানুন বিস্তারিত।

নিজস্ব প্রতিবেদন :- প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনা একটি জনহিতকর প্রকল্পের মধ্যে অন্যতম সে কথা আমরা প্রত্যেকে জানি । দেশের দারিদ্র সীমার নিচে বসবাসকারী মানুষদের এবং গৃহহীন মানুষদের কে পাকাপোক্ত ঘর করে দেওয়ার একটা প্রয়াস হচ্ছেপ্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনা । প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনা তে এর আগে বহু মানুষ ঘর তৈরি করতে পেরেছেন । মাটির ঘর ভেঙ্গে তৈরি হয়েছে দালান পাকাপোক্ত বাড়ি ।

তবে এবার পুনরায় বিশাল সংখ্যক গৃহনির্মাণের সবুজ সঙ্কেত দিল কেন্দ্রীয় সরকার । প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনা’-র আওতায় গ্রামীণ বাসস্থান নির্মাণ প্রকল্প রূপায়নের বিষয়টি অনুমোদিত হয় কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার বৈঠকে। প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনার অধীনে কেন্দ্রীয় সরকার শহরাঞ্চলে ১৬৪৮৮ টি বাড়ি তৈরীর প্রস্তাবে সবুজসংকেত দিয়েছে।মন্ত্রকের তরফ থেকে এ ব্যাপারে বিবৃতি জারি করা হয়েছে।যারা ঘরের পরিবর্তে ফ্লাট কিনবে তাদেরকে ভর্তুকি দিবে সরকার ।

এমনকি যদি কেউ ঋণ নিয়ে ফ্ল্যাট কানে তাহলে সেই ভর্তুকি প্রদান করা হবে সরকারের তরফ থেকে এমনটা জানানো হয়েছে ।এ প্রশ্ন আসছে কারা কারা আবাস যোজনায় নিজেদের নাম নথিভুক্ত করতে পারবে ।ই ডব্লিউ এস এ আবেদনের জন্য বার্ষিক পারিবারিক আয় ৩ লক্ষ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। এল আই জির বার্ষিক আয় ৩-৬ লক্ষ্য টাকা রাখা হয়েছে। ৬ লক্ষ্য থেকে ১২ লক্ষ টাকা পর্যন্ত বার্ষিক আয়ের লোকেরা এম আই জি ১-এর অধীনে পড়েন।

এমনকি এই প্রকল্পের অধীনে ১২-১৮ লক্ষ টাকা পর্যন্ত আয়ের লোকেরাও পড়ে। এদেরকে রাখা হয়েছে এম আই জি – ২ এ। আবেদনকারীর নিজের কিংবা পরিবারের নামে দেশের কোন স্থানে কোন ও পাকা বাড়ি থাকা চলবে না।এবার প্রশ্ন আছে কিভাবে এই আবাস যোজনা নিজের নাম নথিভুক্ত করবে তা জানাবো বিস্তারিত ভাবে ।

১) এই যোজনায় আবেদনের জন্য কোন ব্যক্তি মোবাইলে সরাসরি অ্যাপ ডাউনলোড করে লগইন আইডি তৈরি করতে পারেন।

২) এরপর আপনার রেজিস্টার মোবাইল নাম্বারে একটা ওটিপি পাঠানো হবে

৩) সেই ওটিপি দিয়ে আপনাকে লগইন করতে হবে ।

৪) বাড়ি পাওয়ার জন্য আবেদন এর পরে কেন্দ্রীয় সরকারের তরফ থেকে সুবিধাভোগীদের বেছে নেওয়া হবে।

৫) এরপর সেই তালিকা ওয়েবসাইটে দেওয়া হবে।

Related Articles

Back to top button