অফবিটনিউজভাইরাল & ভিডিও

স্নাতকে তিনি ফার্স্ট ক্লাস। তবুও এনআরএসে ডোম পদে আবেদন জানিয়েছেন স্বর্ণালী।

নিজস্ব প্রতিবেদন: নীলরতন সরকার মেডিক্যাল কলেজ অ্যান্ড হসপিটাল সম্প্রতি ডোমপদে নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে। আর এই বিজ্ঞপ্তিতে প্রার্থীদের শিক্ষাগত যোগ্যতা চাওয়া হয়েছে অষ্টম শ্রেণী পাশ। কিন্তু বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত হওয়ার পর এই হু হু করে আসা আবেদনে দেখা গিয়েছে রীতিমতো স্নাতক, স্নাতকোত্তর, পিএইচডি ডিগ্রিধারীরাও আবেদন করছেন। এরকমই একজন হলেন স্বর্ণালী সামন্ত।

তিনি হাওড়া শিবপুরের বাসিন্দা । তিনি স্নাতকে ইতিহাসে ফার্স্ট ক্লাস । কিন্তু তিনি এনআরএসের ডোম পদে আবেদন জানিয়েছেন। কারণ হিসাবে তিনি বলেছেন তাঁর জীবন সংগ্রামের গল্প।

আরও পড়ুন-ছদ্মবেশে পেয়ারা বিক্রি করলেন পুলিশের এএসপি। ভাইরাল সোশ্যাল মিডিয়ায়।

ইতিহাসে গোল্ড মেডেলিস্ট স্বর্ণালীর এবং আরো উচ্চশিক্ষিত বেশ কয়েকজনের এই ডোম পদে আবেদন আসলে আমাদের রাজ্য তথা দেশের বেকারত্বের একটি জ্বলন্ত সমস্যাকে আমাদের সামনে উপস্থাপিত করেছে।স্বর্ণালী জানিয়েছেন তাঁর জীবন সংগ্রামের কাহিনী। তিনি জানিয়েছেন যে অল্প বয়সেই বিয়ে হয়েছিলো তাঁর। তাঁর স্বামী উবের বাইক চালক।

তিন মাসের শিশু এবং স্বামীকে নিয়ে তাঁর ছোট্ট সংসার। বিয়ের পরেও পড়াশোনা চালিয়ে গিয়েছেন স্বর্ণালী। ইতিহাসে ফার্স্ট ক্লাস পাওয়ার পর বেশ কিছু সরকারি চাকরির পরীক্ষায় বসেছিলেন স্বর্ণালী। কিন্তু কোনো পরীক্ষাতেই সফল হতে পারেননি তিনি।

আরও পড়ুন-করোনা কেড়েছে বাবার কাজ। অভাবের তাড়নায় আইসক্রিম বিক্রি করছে নবদ্বীপের মেধাবী ছাত্র পলাশ দেবনাথ।

এরপরে ডালহৌসির একটি বেসরকারি সংস্থায় চাকরিতে যোগ দিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু এই ভয়াবহ করোনা পরিস্থিতিতে তাঁর চাকরি চলে গিয়েছে। সেই সাথে তার স্বামী দেবব্রতর রোজগারেও ভাটা পড়েছে। যার দরুণ তাঁদের তিনমাসের ছোট্ট শিশুকন্যাকে নিয়ে তাঁদের দিনাতিপাত করাই অত্যন্ত দুঃসাধ্য হয়ে পড়েছে।

তাই প্রাণপনে এন‌আর‌এসের এই ডোমের চাকরিই চাইছেন স্বর্ণালী। তিনি বলেছেন,”কোনো কাজকেই ছোটো করে দেখা উচিৎ নয়। যদিও আমি ল্যাবরেটরী এটেনডেন্ট দেখে আবেদন জানিয়ে ছিলাম, পরে জানতে পারি এই পদ হল ডোমের। কিন্তু এই পরিস্থিতিতে একটা স্থায়ী চাকরির আমার খুবই প্রয়োজন।

আরও পড়ুন-অভিনেত্রী থেকে হঠাৎ করেই ইউটিউবার হবার স্বপ্ন কেন দেখলেন পায়েল সরকার ? বাস্তবে রয়েছে কি কারন? জানুন বিস্তারিত

তাই এই চাকরিও আমি করতে রাজী আছি। যখন মহিলারা হাসপাতালে ডাক্তারি থেকে শুরু করে আয়া হতে পারেন তাহলে আমি মহিলা হয়ে ডোম হতে পারবো না কেন? গত রবিবার এনআরএস মেডিকেল কলেজে লিখিত পরীক্ষা দিয়েছি । এবার দেখা যাক ফলাফল কি হয়!”

Related Articles

Back to top button