নিউজপলিটিক্সরাজ্য

“মহিলাদের ডিজিটাল শিক্ষার জন্য কেন্দ্রীয় সরকার কি পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে?”- স্মৃতি ইরানিকে প্রশ্ন করলেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়

নিজস্ব প্রতিবেদন: বাদল অধিবেশনের প্রথম থেকেই পেগাসাস সহ বিভিন্ন ইস্যুতে কেন্দ্রীয় সরকারের প্রতি ব্যাপক আক্রমণ শানিয়ে আসছেন তৃণমূল সর্বভারতীয় সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। পেগাসাস, পেট্রোল ডিজেলের মূল্যবৃদ্ধি, এবং আরো নানান ইস্যুতে কেন্দ্রীয় সরকারের প্রতি ব্যাপক আক্রমণ শানিয়ে চলেছেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। তৃণমূলকে সর্বভারতীয় স্তরে পৌঁছে দেওয়ার দ্বায়িত্বভার দেওয়া হয়েছে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে । দু’দিন আগেই তিনি ত্রিপুরা পৌঁছে গিয়েছিলেন। সেখানে গিয়ে তাঁর কনভয়ে আক্রমণের ঘটনায় যথেষ্ট চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়েছে সারা রাজ্য জুড়ে।

গতকাল কেন্দ্রীয় নারী এবং শিশু কল্যাণমন্ত্রী স্মৃতি ইরানির কাছে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় জানতে চেয়েছেন যে মহিলাদের ডিজিটাল শিক্ষার বিষয়ে রাজ্য সরকার কি ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে ? অনেক জায়গাতেই ভারতের মধ্যে মহিলাদের মধ্যে শিক্ষার হার কম রয়েছে। তাই এই ডিজিটাল শিক্ষার বিষয়ে তাঁদের কি অন্য কারো উপরে নির্ভর করতে হয়েছে ? মহিলারা নিজেরাই যাতে এই ডিজিটাল তথ্যের সমস্ত বিষয় নিজেরাই সংগ্রহ করতে পারে সেই বিষয়ে কি পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে কেন্দ্রীয় সরকার?

আরও পড়ুন-নাড্ডার কাছে পরবর্তী সভাপতি হিসাবে বিজেপির তরুণ সাংসদের নাম প্রস্তাব করলেন দিলীপ ঘোষ।

এই সমস্ত প্রশ্ন করেছেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়।এই সমস্ত প্রশ্নের উত্তরে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী স্মৃতি ইরানি বলেছেন,”প্রধানমন্ত্রী গ্রামীন ডিজিটাল সাক্ষরতা অভিযান প্রকল্পের অন্তর্গত ডিজিটাল ইন্ডিয়া প্রকল্পে গ্রামীণ এলাকায় প্রতিটি বাড়ি থেকে কমপক্ষে একজনকে শিক্ষিত করে তোলার কর্মসূচি নেওয়া হয়েছে । আগামী ২০২২ সালের ৩১ শে মার্চের মধ্যেই এই কর্মসূচি বাস্তবায়িত করা হবে। সমগ্র দেশে আড়াই লক্ষ গ্রাম পঞ্চায়েতকে বেছে নেওয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন-এই প্রথম বিশ্ব আদিবাসী দিবসে ঝাড়গ্রাম যাচ্ছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

প্রতিটি পঞ্চায়েত এলাকায় ২০০ থেকে ৩০০ জনকে এই পদ্ধতিতে শিক্ষিত করে তোলার লক্ষ্যমাত্রা নেওয়া হয়েছে। সরকার প্রান্তিক শ্রেণীর মহিলাদের শিক্ষিত করে তোলার উদ্যোগ নিয়েছে। যাদের ডিজিটাল শিক্ষা দেওয়া হবে, তাঁরা খুব সহজেই ট্যাব, স্মার্টফোন, কম্পিউটার ব্যবহার করতে পারবেন। এই সমস্ত কিছু তাঁদের কাজে লাগবে।

এর ফলে সরকারি প্রকল্প গুলি সম্পর্কে তাঁরা সম্যক ধারণা পাবেন। যার ফলে তারা আগামী দিনে দেশ গঠন করার কাজে সক্রিয় ভূমিকা পালন করতে পারবেন।”

Related Articles

Back to top button