নিউজটেক নিউজরাজ্য

“পশ্চিমবঙ্গের বন্যা ম্যান মেড”- ডিভিসির জল ছাড়া নিয়ে প্রধানমন্ত্রীকে কড়া চিঠি দিলেন মুখ্যমন্ত্রী।

নিজস্ব প্রতিবেদন: গতকাল হুগলির খানাকুলে এবং গোঘাটে যাওয়ার কথা ছিল মুখ্যমন্ত্রীর।‌সেইমতো হুগলির খানাকুলে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আগমন উপলক্ষ্যে হেলিপ্যাড বানানো হয়েছিলো। কিন্তু অত্যন্ত খারাপ আবহাওয়ার দরুণ তিনি খানাকুলে যেতে পারেনন। তিনি হাওড়ার আমতা, উদয়নারায়নপুরে বন্যা দুর্গত মানুষদের সাথে দেখা করতে গিয়েছিলেন।

কলকাতায় ইতিমধ্যেই প্রত্যাবর্তন করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি আমতা থেকে সরাসরি ডিভিসিকে যথেষ্ট দোষারোপ করেছেন। তিনি বলেছেন,”বৃষ্টির দরুন এই বন্যা হয়নি। এটা হল ম্যান মেড বন্যা।

আরও পড়ুন-ঘাটালে গিয়ে খালি পায়েই কাদায় নেমে গ্রামবাসীদের সাথে কথা বললেন সাংসদ দেব

ডিভিসি নিজের ইচ্ছামতো জল ছাড়ছে যখন তখন। আমাদের না জানিয়ে জল ছেড়েছে, যার ফলে এতগুলো মানুষ দুরবস্থার মধ্যে পড়েছে। একটা খাল‌ও ডিভিসি সংস্কার করেনি। যার জন্যেই এই বন্যা। আজ আমি খানাকুলেও যাবো ভেবেছিলাম।

কিন্তু প্রতিকূল আবহাওয়ার দরুণ যেতে পারিনি।”জানা গিয়েছে বাংলার বন্যা পরিস্থিতির সমস্ত খোঁজখবর নিতে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে ফোন করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।এই আবহের মধ্যে প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি লিখেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এই চিঠিতে তিনি লিখেছেন,”মাইথন, তেনুঘাট ব্যারেজ, এবং পাঞ্চেত ব্যারেজ থেকে ব্যাপক পরিমাণে জল ছাড়া হয়েছে।

আরও পড়ুন-আগামী ১ লা সেপ্টেম্বর থেকেই লক্ষীর ভান্ডারের অর্থ পাওয়া যাবে। জানুন বিস্তারিত

সেখান থেকে এর মধ্যেই ২ লাখ কিউসেক জল ছাড়া হয়েছে । যার ফলে এই ম্যান মেড বন্যা পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে । হাওড়া, হুগলি, বীরভূম এবং পূর্ব বর্ধমানের অনেকটাই অংশ প্লাবিত হয়েছে। ইতিমধ্যেই হাজার হাজার বিঘা চাষের জমি জলের তলায় চলে গিয়েছে। ‌

ডিভিসি প্রতিবছর পরিকল্পনাহীন জল ছেড়ে রাজ্যে বন্যা পরিস্থিতির সৃষ্টি করে চলেছে। ‌ বহুদিন ধরে ডিভিসি খালগুলোর কোনো সংস্কার করেনি। তাই সামান্য জল ছাড়লেই রাজ্যে বন্যা পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়ে যাচ্ছে। এখনো পর্যন্ত রাজ্যে বন্যা পরিস্থিতিতে ২৩ জন মারা গিয়েছেন।

রাজ্যে মোট ৩৬১ টি ত্রাণশিবির খোলা হয়েছে।”

Related Articles

Back to top button