নিউজপলিটিক্স

“ভারত বাঁচাতে দিদিকে আমরা চাই।”- এবার বামেদের গড় কেরালা’তে নতুন করে যাত্রা শুরু করল তৃণমূল কংগ্রেস।

নিজস্ব প্রতিবেদন: পশ্চিমবঙ্গে বিগত ৩৪ বছরের বাম জমানায় অবসান করে রাজ্যে জোড়া ফুল ফুটিয়ে ছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ক্রমাগত রাজ্যে ফিকে হয়েছে বাম আধিপত্য। বর্তমানে তৃণমূলের প্রধান বিরোধীদল রূপে পশ্চিমবঙ্গে আসীন রয়েছে বিজেপি। ‌ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতাদের পশ্চিমবঙ্গে রীতিমতো পর্যুদস্ত করার পর পশ্চিমবঙ্গের বাইরে দেশের অন্যান্য জেলাগুলিতেও তৃণমূলের আধিপত্য বিস্তারে সচেষ্ট হয়েছেন।

বর্তমানে তার পাখির চোখ উত্তর প্রদেশ এবং ত্রিপুরার বিধানসভা নির্বাচনের দিকে। ‌ ইতিমধ্যেই ত্রিপুরায় গিয়ে সমীক্ষার কাজ শুরু করে দিয়েছে আইপ্যাক। এছাড়াও ত্রিপুরার মাটিতে কখনো আসা-যাওয়া করছেন তৃণমূলের তাবড় তাবড় নেতারা। ত্রিপুরার মাটিতেই উপস্থিত হয়েছিলেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়।

আরও পড়ুন-“আমাদের নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, সেনাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়”- ত্রিপুরায় পৌঁছে মহাজোটের বার্তা দিলেন কুনাল ঘোষ

এবার বামেদের গড় কেরালাতেও নতুন করে যাত্রা শুরু করল তৃণমূল কংগ্রেস। কেরালার এর্নাকুলামে পড়লো পোস্টার যাতে লেখা রয়েছে, ‘বাংলা বাঁচাতে আমরা দিদিকে চাই। দিল্লি চলো।’ এই পোস্টার লেখা হয়েছে ইংরেজি এবং মালায়ালামে।

জানা গেছে গত ২০১৪ এর লোকসভা ভোটে কেরলে নির্বাচনে মাত্র ৫ জন প্রার্থী দিতে পেরেছিল তৃণমূল কংগ্রেস। কিন্তু বর্তমানে কেরালার মাটিতে ৫১ জনের কমিটি পত্তন করেছে তৃণমূল।গতকাল এর্নাকুলামে বহু রাজনৈতিক কর্মীরা তৃণমূলের পতাকা হাতে নিয়ে তৃণমূলে যোগদান করেছেন। ‌ যার ফলে এবার কেরালার মাটিতে শক্তি অনেকটাই বৃদ্ধি পেতে চলেছে তৃণমূল কংগ্রেসের।

আরও পড়ুন-পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রীর প্রধান উপদেষ্টার পদ থেকে ইস্তফা দিলেন প্রশান্ত কিশোর।

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় একুশে জুলাইয়ের শহীদ দিবসের মঞ্চে দেশজুড়ে বিজেপি বিরোধী শক্তি গুলিকে ঐক্যবদ্ধ হতে আহ্বান জানিয়েছেন। সেইমতো তিনি দিল্লিতে গিয়ে বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ রাজনৈতিক সংগঠনের নেতা নেত্রীদের সাথে দেখা করেছেন। ‌ এবার সারা ভারতের বিভিন্ন রাজ্যে নিজেদের শাখা বিস্তারে তৎপর হয়ে রয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস।

Related Articles

Back to top button