লাগামছাড়া করোনা সংক্রমণ;২৪ ঘণ্টায় আক্রান্তের সংখ্যা পৌঁছল ৪০০০ এর উপর!জেনে নিন গতকালের পরিসংখ্যান।

লাগামছাড়া করোনা সংক্রমণ;২৪ ঘণ্টায় আক্রান্তের সংখ্যা পৌঁছল ৪০০০ এর উপর!জেনে নিন গতকালের পরিসংখ্যান।

নিজস্ব প্রতিবেদন:-ভোটের মুখে আরো উদ্বেগ বাড়িয়ে বাংলায় গতকাল লাগামছাড়া মাত্রা পেল করোনাভাইরাসের সংক্রমণ। প্রসঙ্গত গতকাল রাজ্যে ছিল চতুর্থ দফার বিধানসভা নির্বাচনের ভোটগ্রহণ পর্ব।বিগত কয়েক দিন থেকেই রাজ্যে ক্রমাগত দৈনিক আক্রান্তের পরিমাণ বৃদ্ধি পাচ্ছিল। এমতাবস্থায় শনিবার এই পরিসংখ্যান সোজাসুজি একধাক্কায় পৌঁছে গেল ৪০০০ এর উপর। যা দেখে রীতিমতো ভীত হয়ে পড়েছেন রাজ্যের চিকিৎসক মহল। তার কারণ এই মুহূর্তে রাজ্যে ভোট চলায় কোনভাবেই লকডাউন করা সম্ভবপর নয়।

যদিও লকডাউন এর সম্পূর্ণ সিদ্ধান্ত রাজ্য সরকারের উপর আগেই দিয়ে দিয়েছে কেন্দ্র। তবে ভোটের মিছিল–সমাবেশ এবং প্রচার চলার জন্য আপাতত লকডাউন করতে রাজি নয় তৃণমূল সরকার। এদিকে কোনরকম সামাজিক দূরত্ব না মেনে মাস্ক এর ব্যবহার ছাড়াই প্রচার কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন মানুষজন। যার ফলস্বরুপ ক্রমাগত বাড়ছে রাজ্যে ভাইরাস আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা।এমনকি বেশিরভাগ জায়গাতে ভ্যাকসিন এর সম্পূর্ণ ডোজ নেওয়ার পরেও রোগীর সংখ্যায় কোন পরিবর্তন লক্ষ্য করা যাচ্ছে না। আসুন দেরি না করে গতকালের পরিসংখ্যান এক ঝলকে দেখে নেওয়া যাক।

আরও পড়ুন-শীতলকুচিতে ৪ ব্যক্তির প্রাণ যাওয়ার ঘটনায় মুখ খুললেন কংগ্রেস নেতা চিদম্বরম;‘ঘটনার দায়ভার কে নেবে’? প্রশ্ন তুলে আক্রমণ কমিশনকে!

গতকাল শনিবার এই রাজ্যে নতুন করে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন৪ হাজার ৪৩ জন। শুক্রবার এই সংক্রমণ এর পরিমাণ ছিল ৩ হাজার ৬৪৮ জন। গতকালের পরিসংখ্যান যোগ করার পর পশ্চিমবঙ্গে মোট আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৬ লক্ষ্য ১০ হাজার ৪৯৮ জন।আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়াও এদিন মৃত্যুর সংখ্যাতেও বৃদ্ধি লক্ষ্য করা গিয়েছে। শনিবার পশ্চিমবঙ্গে করোনার বলি হয়ে মারা গিয়েছেন ১২ জন ব্যক্তি।এদের মধ্যে ৪ জন কলকাতার, ও ৫ জন উত্তর ২৪ পরগনার। মুর্শিদাবাদ, হাওড়া ও দক্ষিণ ২৪ পরগনায় ১ জন করে মৃত্যু হয়েছে।

এদিন রাজ্যে নমুনা পরীক্ষার সংখ্যা বিগত দিনগুলোর তুলনায় সামান্য পরিমানে বেড়েছে। শনিবার রাজ্যে নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ৩৬ হাজার ৮৬৫ জনের। যার ফলে সংক্রমণ হার দাঁড়িয়েছে ১০.৯৭ শতাংশ। এদিকে পশ্চিমবঙ্গের তৃতীয় দফায় টিকা নিয়েছেন ৩ লক্ষ্য ৬১ হাজার ৯৪০ জন।এর ফলে টিকাকরণের পরিমাণ বেড়ে দাঁড়াল ৭৬ লক্ষ্য ৭৪ হাজার ৬৩৪।উল্লেখ্য বিগত দিনগুলোর মতো শনিবারেও আক্রান্তের নিরিখে সর্বোচ্চ স্থানে রয়েছে রাজধানী কলকাতা। এদিন কলকাতায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৯৯৭ জন।এরপর যথাক্রমে উত্তর ২৪ পরগনায় ৮৮৭,হাওড়ায় ২৮৯, হুগলিতে ১৯১, দক্ষিণ ২৪ পরগনায় ২৯১, পশ্চিম বর্ধমানে ২৬৬ ও বীরভূমে ২৭১ জন আক্রান্ত হয়েছেন।