“কাজ না করে কৃতিত্ব নেওয়ার চেষ্টা কম বুদ্ধির পরিচয়।”- করোনা ইস্যুতে কেন্দ্রীয় সরকারকে বিধলেন অমর্ত্য সেন।

“কাজ না করে কৃতিত্ব নেওয়ার চেষ্টা কম বুদ্ধির পরিচয়।”- করোনা ইস্যুতে কেন্দ্রীয় সরকারকে বিধলেন অমর্ত্য সেন।

নিজস্ব প্রতিবেদন: সারা ভারত জুড়ে রীতিমতো তাণ্ডব চালাচ্ছে করোনা ভাইরাস। এই ভাইরাসের কবলে পড়ে প্রাণহানি ঘটছে বহু মানুষের। এখনো পর্যন্ত সারা ভারতের বুকে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন মোট ২ কোটি ৮৬ লক্ষ ৯৪ হাজার ৮৭৯ জন। মৃত্যু হয়েছে ৩ লক্ষ ৪৪ হাজার ১০১ জনের। সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ২ কোটি ৬৭ লক্ষ ৯৫ হাজার ৫৪৯ জন। সারা ভারত জুড়ে এখনো অর্ধেক মানুষকেও টীকা দেওয়া সম্ভব হয়নি।

গুজরাটে নয়টি অক্সিজেন প্ল্যান্টের উদ্বোধন করে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী দাবি করেছেন করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের ধাক্কা সামলাতে যথেষ্ট সফল হয়েছে ভারত। তাঁর এই আগাম যুদ্ধজয়ের ঘোষণায় কিছুটা চিন্তা বাড়িয়েছে বিজ্ঞানীদের। ‌ বিজ্ঞানীরা বলছেন সারাদেশে দৈনিক সংক্রমণ প্রায় দেড় লক্ষ। ভাইরাস যখন তখন তার চরিত্র পরিবর্তন করছে। এই পরিস্থিতিতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর ঘোষণা কিছুটা বিপদ বাড়িয়ে দিতে পারে।

আরও পড়ুন-“অবসরপ্রাপ্ত আমলাদের পুনর্নিয়োগের বাধ্যতামূলক হবে ভিজিল্যান্সের ছাড়পত্র।”- জারি হল নির্দেশিকা।

একদিকে ভারতের বিভিন্ন জায়গায় দেখা গিয়েছে অক্সিজেনের অভাব, বেডের অভাব।সেই পরিস্থিতিতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর এই ঘোষণায় সিঁদুরে মেঘ দেখছেন বিজ্ঞানীরা। এর ফলে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ এর বিরুদ্ধে লড়াই করার প্রক্রিয়া অনেকটাই আঘাতপ্রাপ্ত হবে বলে ধারণা বিজ্ঞানীদের। এখনো বহু মানুষের মধ্যে এই ভাইরাসের বিরুদ্ধে দৃঢ় সচেতনতা গড়ে তোলা যায়নি।এদিকে করোনা ইস্যুতে কেন্দ্রীয় সরকারের কড়া সমালোচনা করেছেন নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ অমর্ত্য সেন।

আরও পড়ুন-মনোজ বাজপেয়ীর ‘ফ্যামিলি ম্যান ২’ তে পিএম‌’এর ভূমিকায় হুবহু মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ছায়া।

করোনার এই ভয়াবহ পরিস্থিতির মোকাবিলায় কেন্দ্রীয় সরকার ‘দ্বিধাগ্রস্থ’ বলে উল্লেখ করেছেন অমর্ত্য সেন। তিনি বলেছেন, “কেন্দ্রীয় সরকার এতটাই দ্বিধাগ্রস্থ যে, করণা মোকাবিলায় যথাযথ কাজ না করে নিজেকেই কৃতিত্ব দেওয়ায় ব্যস্ত হয়ে রয়েছে। এই সিজোফ্রেনিয়ার দরুন ব্যাপক সমস্যার সম্মুখীন হয়েছে সারাদেশ। নিজের শক্তির নিরিখে কাজ করতে ব্যর্থ হয়েছে ভারত সরকার।

আরও পড়ুন-মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে পূর্ব মেদিনীপুরে ইয়াস ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শনে গেলেন শোভন দেব চট্টোপাধ্যায়।

যার দরুন করোনার এই সংকট মোকাবিলায় ভারত সরকার যথাযথ কাজ করে উঠতে পারেনি। সারা দেশজুড়ে যেভাবে এই মহামারী ছড়িয়ে পড়েছে তাতে উপযুক্ত ব্যবস্থা গ্রহণ এর পরিবর্তে কেন্দ্র নিজেকে কৃতিত্ব দিতে ব্যস্ত হয়ে পড়েছে। দেশের মধ্যেই আর্থিক দিকে এবং স্বাস্থ্য ক্ষেত্রে গঠনমুলক পরিবর্তন আনা দরকার। কিন্তু কেন্দ্রীয় সরকার এই সমস্ত ক্ষেত্রে উদাসীন ভূমিকা পালন করছে।”