নিউজপলিটিক্সরাজ্য

“তৃণমূল এখন ধর্ষণটাকে অস্ত্র হিসাবে ব্যবহার করছে”- নন্দীগ্রামে গিয়ে বিস্ফোরক উক্তি বিজেপি নেত্রী অগ্নিমিত্রা পলের।

নিজস্ব প্রতিবেদন: একুশের ভোটে তৃণমূলের জয়লাভের পর থেকেই বাংলার মাটি হয়ে উঠেছে রক্তস্নাত। বিজেপি কর্মী সমর্থক রা অভিযোগ করেছেন যে তৃণমূল কর্মী সমর্থকদের হাতে আক্রান্ত হতে হচ্ছে তাদের। বহু বিজেপি কর্মীকে মারধরের অভিযোগ উঠেছে তৃণমূল কর্মীদের বিরুদ্ধে। এছাড়াও ভোট-পরবর্তী হিংসার পরিস্থিতিতে প্রাণ ভয়ে বাড়ি ছেড়ে পালিয়েছেন বহু বিজেপি কর্মী সমর্থক।

কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব রাজ্যের বিজেপি কর্মীদের সুরক্ষা দেওয়ার ব্যাপারে উদাসীন ভূমিকা পালন করছে বলে অভিযোগ করছেন রাজ্যের বিজেপি নেতৃত্ব। রাজ্যের এই হিংসাত্মক পরিস্থিতিকে কেন্দ্র করে সুপ্রিম কোর্টে জনস্বার্থ মামলা দায়ের হয়েছিল যাতে রাজ্যে রাষ্ট্রপতি শাসন জারি করা যায়। রাজ্যের এই হিংসাত্মক পরিস্থিতির অভিযোগে রাজ্যপালের কাছে সাক্ষাৎ করতে গিয়েছেন বিজেপির মোট ৫০ জন বিধায়ক। বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীর নেতৃত্বে রাজ্যপালের সাথে দেখা করেছেন তারা।

আরও পড়ুন-নন্দীগ্রামে গণনা কে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে হাইকোর্টে আবেদন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। আজ শুনানি। কটাক্ষ বিজেপির।

নন্দীগ্রামে গতকাল গিয়েছিলেন বিজেপি বিধায়ক অগ্নিমিত্রা পল। তিনি সেখানে ভোট পরবর্তী হিংসায় আক্রান্ত বিজেপি কর্মীদের সাথে দেখা করেছেন। তিনি নন্দীগ্রাম থেকে তৃণমূলের বিরুদ্ধে আক্রমণ শানিয়ে বলেছেন, “তৃণমূল এখন ধর্ষণটাকে একটা অস্ত্র হিসাবে ব্যবহার করছে। মহিলারা হলেন সফট্ টার্গেট, তাই তাঁদের ধর্ষণের ভয় দেখিয়ে, ধর্ষণ করে দমিয়ে রাখার চেষ্টা করছে তৃণমূল।

আরও পড়ুন-মুকুলের বিধায়ক পদ খারিজ করার জন্য রণকৌশল সাজাচ্ছেন শুভেন্দু অধিকারী।

যাতে তারা এবং তার পরিবারের সকলে আগামীদিনে বিজেপির পতাকা হাতে তুলে না নেয় সেই মরিয়া চেষ্টা করছে তৃণমূল।”এদিকে নন্দীগ্রামের ১ নম্বর ব্লকের তৃণমূল সভাপতি স্বদেশ দাস অগ্নিমিত্রা কে কটাক্ষ করে বলেছেন, “বিজেপির মুখে এই কথা মানায় না, বিজেপি নিজেই মহিলাদের কখনো সম্মান দেয়নি।”

Related Articles

Back to top button