উত্তরবঙ্গ সফরে যাওয়া রাজ্যপালকে কালো পতাকা দেখালো তৃণমূল কর্মীরা

উত্তরবঙ্গ সফরে যাওয়া রাজ্যপালকে কালো পতাকা দেখালো তৃণমূল কর্মীরা

নিজস্ব প্রতিবেদন: গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় দিল্লি গিয়েছিলেন রাজ্যপাল।রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দের সাথে তিনি দেখা করেছেন। রাজ্যের আইন শৃঙ্খলার অবনতি হয়েছে এই মর্মে তিনি রাষ্ট্রপতিকে একটি রিপোর্ট দিয়েছেন। ‌ এরপর তিনি দেখা করেছেন কয়লা মন্ত্রী এবং সংস্কৃতি মন্ত্রীর সাথে।

গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা সাতটায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের সাথে তিনি বৈঠক সম্পন্ন করেছেন। ‌ জানা গিয়েছে দীর্ঘক্ষন এই বৈঠকে রাজ্যপাল সবিস্তারে বাংলা মাটিতে হিংসাত্মক পরিস্থিতি এবং আইন শৃঙ্খলার অবনতি সম্পর্কে অমিত শাহের সাথে আলোচনা করেছেন এবং অমিত শাহের হাতে একটি রিপোর্ট তুলে দিয়েছেন। এর ৪৮ ঘন্টার মধ্যেই আবার দ্বিতীয়বার অমিত শাহের সাথে সাক্ষাৎ করেছেন রাজ্যপাল যার ফলে রাজ্য রাজনীতিতে জোর জল্পনার সূত্রপাত হয়েছে। সম্প্রতি রাজ্যের রাজনীতির আঙিনায় উত্তরবঙ্গ কে ঘিরে ব্যাপক বিতর্কের সূত্রপাত হয়েছে।

আরও পড়ুন-“৩০ দিনের মধ্যে উত্তর না দিলে নেওয়া হবে কড়া পদক্ষেপ।”- আবার আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়কে চিঠি কেন্দ্রের। নিন্দা তৃণমূলের।

এই আবহে রাজ্যপাল জানিয়েছিলেন যে তিনি সস্ত্রীক উত্তরবঙ্গ সফর করতে চলেছেন। তিনি জানিয়েছেন যে, দার্জিলিং সফর করে তিনি সোজা পৌঁছাবেন কার্শিয়াং। টুইট করে রাজ্যপাল জানিয়েছিলেন যে, সোমবার‌ই তিনি উত্তরবঙ্গ সফরে র‌ওনা দিচ্ছেন। সেইমতো গতকাল‌ সোমবার দুপুরে তিনি বাগডোগরা বিমানবন্দরে নামেন।

সেখানে তিনি সাংবাদিকদের জানিয়েছিলেন যে, কার্শিয়াং হয়ে তিনি দার্জিলিংয়ের উদ্দেশ্যে বেরোবেন। সেই মতো তিনি কার্শিয়াং হয়ে দার্জিলিংয়ের পথে এগোচ্ছিলেন।তখনই হঠাৎ রাস্তার পাশে অগণিত তৃণমূল কর্মীরা জড়ো হয়ে রাজ্যপালের কনভয়ের উদ্দেশ্যে কালো পতাকা নিয়ে বিক্ষোভ দেখিয়েছেন। এর আগেও বেশ কয়েকবার রাজ্যপালকে রাজ্যবাসীর বিক্ষোভের মুখে পড়তে হয়েছে।

আরও পড়ুন-“উত্তরপ্রদেশে মোদীর ভোটপ্রচারের ফলেই আছড়ে পড়বে করোনার তৃতীয় ঢেউ।

বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করে পড়ুয়াদের বিক্ষোভের মুখে পড়তে হয়েছে তাঁকে। কার্শিয়াংয়ে রাজ্যপালকে তৃণমূল কর্মীরা বিক্ষোভ দেখিয়েছেন কারণ রাজ্যপাল সম্প্রতি দিল্লি সফর করে বাংলার সম্পর্কে অপমানজনক কথা বলেছেন এবং সেই সাথে নিজের পদের সঠিক মর্যাদা রক্ষা করেননি। এমনটাই বলেছেন কার্শিয়াং এর তৃণমূল ব্লক সম্পাদক সম্রিত ছেত্রী। এই প্রসঙ্গে রাজ্যপাল এখনো কোনো মন্তব্য করেননি।