নিউজপলিটিক্সরাজ্য

“টম, ডিক, হ্যারিদের কথা শুনতে রাজী ন‌ই”- পরোক্ষভাবে অধীরের উদ্দেশ্যে তীর ছুঁড়লেন কংগ্রেস নেতা মান্নান

নিজস্ব প্রতিবেদন: সম্প্রতি কংগ্রেস নেতা অধীর চৌধুরী গত ২১ শে জুন বহরমপুর এর সাংবাদিক বৈঠকে বলেছেন যে, “মুর্শিদাবাদে আইএসএফ আমাদের বিরুদ্ধে প্রার্থী দিয়েছিল। তখন থেকেই ওদের সঙ্গে আমাদের কোনো রকম জোট ছিল না। আগামী দিনে আই এস এফ এর সাথে আমাদের কোন রকম জোট থাকবে না।”অধীর চৌধুরীর এই বক্তব্যের পর এই আইএসএস বিধায়ক নওশাদ সিদ্দিকী বলেছিলেন, “জোট নিয়ে রাজ্যের দুই বর্ষীয়ান নেতা আব্দুল মান্নান এবং প্রদীপ ভট্টাচার্য কে জিজ্ঞাসা করা উচিত।

তার কারণ তাদের সামনেই জোট নিয়ে সমস্ত রকমের আলোচনা পর্ব সম্পন্ন হয়েছিল। ওই বর্ষিয়ান নেতা যদি বলেন কংগ্রেসের সঙ্গে আমাদের কোনো রকম জোট নেই , তাহলে আমরাও আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষণা করব যে কংগ্রেসের সঙ্গে আমাদের আগামী দিনে আর কোন জোট থাকবে না।”অধীর চৌধুরীর ঘোষণার পরেই ফুরফুরা শরীফে সফরে গিয়েছেন বর্ষিয়ান কংগ্রেস নেতা আব্দুল মান্নান। তিনি অধীর চৌধুরীর এই ঘোষণার পরিপ্রেক্ষিতে বলেছেন, “আমার বয়সী আর কোন প্রদেশ কংগ্রেস নেতা আপাতত নেই ।

আরও পড়ুন-“নিরাপত্তা দিতে পারিনি কর্মীদের”- দিলীপ ঘোষের সুরে বললেন বাবুল সুপ্রিয়

আমি বহুদিন থেকে দল করছি। কংগ্রেস সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধী এবং রাহুল গান্ধী যা নির্দেশ দেন আমি সেই নির্দেশ অনুযায়ী কাজ করি। আমার প্রতিটি পদক্ষেপ তারা জানেন। যদি সোনিয়া গান্ধী আমাকে নির্দেশ দেন যে জোট করতে হবে না, তাহলে আমি তাই করবো।

পাখি কে কি বলল তাতে আমি কোন রকম আমল দিতে রাজি নই। এই জোটে সায় দিয়েছিল দিল্লি। তাই দিল্লি নির্দেশ দেবে যে এই জোট আগামীদিনে থাকবে কি না। যদি টম, ডিক, হ্যারিরা চায় আমার উপর নিয়ন্ত্রণ চালাবে তাহলে এই বিষয়টি আমি কখনোই সহ্য করব না। আমি দিল্লির নির্দেশ ছাড়া আর কারো নির্দেশ মানতে রাজি নয়।”

আরও পড়ুন-বঙ্গ বিভাজনের দাবির পরিপ্রেক্ষিতে বিজেপি বিধায়কের বাড়ির সামনে বিক্ষোভ দেখালো তৃণমূল সমর্থকরা

বর্ষীয়ান এই কংগ্রেস নেতা কার্যত অধীর চৌধুরীর দিকেই তীর ছুঁড়েছেন তা স্পষ্টতই বোঝা যাচ্ছে।

Related Articles

Back to top button