আজ শ্রীকৃষ্ণের ঝুলন যাত্রার সুভারম্ভের দিন, জেনে নিন আজকের দিনের মাহাত্ম্য!

সনাতন ধর্ম হিন্দুধর্মের অন্যতম আরাধ্য দেবতা হলেন ভগবান শ্রীকৃষ্ণ। রাধা-কৃষ্ণের মাহাত্ম্য জানেন না এমন হিন্দু তথা অন্যান্য ধর্মের মানুষের‌ও দেখা পাওয়া মুশকিল। আজ পবিত্র ঝুলনযাত্রা। শ্রাবণের অমাবস্যার পরেই একাদশীর দিন থেকে একদম রাখি পূর্ণিমার দিন পর্যন্ত এই ঝুলন যাত্রার উৎসব চলে। রথযাত্রার পরেই এই উৎসব বৈষ্ণব তথা হিন্দুদের এক অন্যতম উৎসব।এই উৎসবে ভগবান শ্রীকৃষ্ণ রাধার জন্য দোলনা সাজানো হয়, ভক্তিমূলক নাচ, গান করা হয়।

আরও পড়ুন – দিনমজুরের ছেলেকে কখনো রাস্তার ল্যাম্পপোস্টের নিচে কখনো এটিএমে অঙ্ক-ইংরাজি পড়ান পুলিশ অফিসার!

বৃন্দাবন, নবদ্বীপ, মথুরার ইসকন মন্দিরে জাঁকজমকপূর্ণ ভাবে এই উৎসব পালিত হয়। দেশ বিদেশের বহু ভক্ত এই উৎসব দেখতে ভীড় জমান। এমনিতেই ইসকনে অসংখ্য বিদেশী ভক্তের দেখা মেলে। এই উৎসবে প্রায় ২৫ থেকে ৩০ রকমের ফলের নৈবেদ্য সাজানো হয়। লুচি, সুজির ভোগ নিবেদন করা হয় ভগবান শ্রী রাধা-কৃষ্ণকে। দোলনা চড়ার এই উৎসবটি থেকেই ঝুলন কথাটি এসেছে। সুসজ্জিত দোলনায় রাধা কৃষ্ণকে বসিয়ে পূজা করা হয়।

আরও পড়ুন –বাংলায় পরপর টানা লকডাউনের মধ্যে কবে খুলবে স্কুল-কলেজ? বড় ঘোষণা নবান্নের

শাস্ত্রমতে দ্বাপর যুগে এই ঝুলনের সূচনা হয়েছিলো। রাধা-কৃষ্ণের প্রেমলীলাকে কেন্দ্র করেই এই উৎসব পালিত হয়। এই উৎসব বর্তমানে অন্যান্য সকল উৎসবের মতোই মান্যতা পেয়েছে। রাধা কৃষ্ণের এই পূজার মাধ্যমে বৈষ্ণবদের একটি অভূতপূর্ব সাংস্কৃতিক চিত্রপটের দেখা মেলে। রাধা কৃষ্ণের দোলনা সাজানো হয় নানান কাঠের পুতুল, গাছপালা, ছোটোদের খেলনা দিয়ে। প্রধানত বৈষ্ণব মঠ, মন্দিরে এবং বনেদী কৃষ্ণভক্ত বাড়িতে এই পূজা করা হয়।

এখানে আপনার মতামত জানান