নিউজ

আজ শেষ দফার ভোটে দিন সকালেই মহাজাতি সদন এর সামনে ব্যাপক বোমাবাজি।

নিজস্ব প্রতিবেদন: একুশের ভোটে যথেষ্ট হিংসা হানাহানি ঘটনা ঘটেছে রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে। প্রথম পর্যায়ের ভোট যথেষ্ট শান্তিপূর্ণভাবে সমাপন হওয়ার পর অনেকেই ভেবেছিলেন যে বাকি সাতটি দফাও হয়তো এবারে শান্তিপূর্ণভাবে সমাপ্ত হতে চলেছে। কিন্তু অচিরেই মানুষের এই ধারণাকে ভুল প্রমাণ করে দ্বিতীয় দফা থেকে শুরু হয়েছে রক্তারক্তির খেলা।

রাজনৈতিক হিংসার শিকার হয়েছেন বেশ কয়েকজন। কোচবিহারেরশীতলকুচিতে ১২৬ নম্বর বুথে কেন্দ্রীয় বাহিনীর গুলিতে মারা গিয়েছেন ৪ তৃণমূল সমর্থক। বীরভূমের মাটিতে গতকাল উদ্ধার হয়েছে বোমা। ‌ রাজনৈতিক সন্ত্রাস’ সরানোর জন্যই এই বোমা-গুলি মজুত করে রাখা হয়েছিল। বেশ কয়েকটি জায়গা থেকেই বোমা গুলি উদ্ধার করা হয়েছে।

আরও পড়ুন-“এমন শান্তিপূর্ণ ভোট আগে কখনো হয়নি।”- বেলগাছিয়ায় ভোট দিয়ে মন্তব্য মিঠুন চক্রবর্তীর।

জানা গিয়েছে ময়ূরেশ্বর বিধানসভার অন্তর্গত রাংতাড়া গ্রামে বিজেপির বুথ সভাপতি জয়দেব চক্রবর্তীর বাড়ি থেকে বোমা উদ্ধার করা হয়েছে। নানুর বিধানসভার অন্তর্গত বনগ্রামে একটি কালভার্টের নীচে প্রায় ১৪ টি তাজা বোমা উদ্ধার করা হয়েছে। আজ রাজ্যের ৩৫ টি আসনে শেষ দফার ভোটগ্রহণ সম্পন্ন হচ্ছে। কলকাতার রয়েছে ৭ টি আসনে ভোটগ্রহণ। এর‌ই মধ্যে একটি ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে বিস্তর।

আজ ভোটের দিন সকালেই কলকাতার মহাজাতি সদনের সামনে সেন্ট্রাল অ্যাভিনিউ এর উপর । আজ সকাল ৮ টার কিছু আগেই এই বোমাবাজির ঘটনা ঘটেছে।প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন এই বোমা যথেষ্ট শক্তিশালী বোমা ছিল। বোমার ভিতরে ছিল লোহার বল যা স্প্রিন্টার হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে। সকাল সকাল এই ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে। জোড়াসাঁকোর তৃণমূল প্রার্থী বিবেক গুপ্ত বলেছেন যে, “বিজেপি আশ্রিত গুন্ডারা এই বোমা বাজি করেছে।”

Related Articles

Back to top button