নিউজদেশপলিটিক্স

“ভারতীয়দের কাছে মাটি মায়ের মতো।”- মৃত্তিকা অবনমন রোধ করতে রাষ্ট্রপুঞ্জে বার্তা প্রধানমন্ত্রীর

নিজস্ব প্রতিবেদন: রাষ্ট্রসঙ্ঘে মৃত্তিকার অবনমন এবং খরা নিয়ে বার্তা দিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। গত রবিবার রাষ্ট্রপুঞ্জের উচ্চপর্যায়ের আলোচনায় অংশগ্রহণ করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তিনি মৃত্তিকার অবনমন এবং মরুভূমির সম্প্রসারণ রোধ করতে সরকারের গৃহীত নানান পদক্ষেপ গুলি আলোচনা করেছেন। বর্তমানে ভারত তথা পৃথিবীর বিভিন্ন দেশ গুলিতে মৃত্তিকা ক্ষয় এবং মরুভূমির সম্প্রসারণ অন্যতম উদ্বেগের বিষয়।

সেই সাথে মৃত্তিকা দূষণ অত্যন্ত অস্বাভাবিকভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে। যার সরাসরি প্রভাব পড়ছে কৃষিক্ষেত্রে তথা সমগ্র মানবসমাজে। প্রতিটি দেশ বর্তমানে মৃত্তিকা ক্ষয় রোধে কিছু না কিছু ভূমিকা পালন করছে।রাষ্ট্রসংঘে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, “মানুষের জীবন যাপন এবং তার রুজি রোজগারের মৌলিক ক্ষেত্র হলো এই মৃত্তিকা।

আরও পড়ুন-“রক্ত ঝরলেও কেউ পাশে থাকেনা।”- বিজেপির অস্বস্তি কয়েকগুণ বাড়িয়ে ফেসবুকে পোস্ট করলেন রূপা গঙ্গোপাধ্যায়

প্রতিটি মানুষের জীবনের সঙ্গে ওতপ্রোতভাবে জড়িত এই মৃত্তিকা। বর্তমানে সারা পৃথিবীতে দুই-তৃতীয়াংশের অধিক মৃত্তিকা ক্ষয় হয়ে গিয়েছে। যদি অবিলম্বে এই মৃত্তিকা ক্ষয় নিয়ন্ত্রণে না আনা যায় তাহলে সমাজ যথেষ্ট ক্ষতিগ্রস্ত হবে। প্রথম থেকেই মৃত্তিকা ক্ষয় রোধে ভারত বর্ষ উল্লেখযোগ্য নেতৃত্ব দিয়ে আসছে।

আরও পড়ুন-“বিজেপি করে ভুল করেছি। দয়াকরে দলে নিন।”- বীরভূমের ইলামবাজারে তৃনমূল কার্যালয়ের সামনে ধর্না দিল বিজেপি কর্মী সমর্থকরা।

প্রতিটি ভারতীয়ের কাছে মাটি হল মায়ের মত । মাটির ক্ষয় রোধ করতে বেশ কয়েকটি পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে ভারত বর্ষ। কচ্ছের রনে যেহেতু খুবই কম বৃষ্টিপাত হয় তাই সেখানে মৃত্তিকা ক্ষয়ের পরিমাণ বেশি। ওই জায়গায় বর্তমানে বৃক্ষরোপণ এবং জমির পুনঃস্থানের মাধ্যমে মৃত্তিকা ক্ষয় রোধ করা অনেকটাই সম্ভবপর হয়েছে।

আমাদের দৃঢ় বিশ্বাস আগামী ১০ বছরের মধ্যেই অন্তত ২ মিলিয়ন হেক্টর জমিতে মৃত্তিকার অবনমন এর হাত থেকে আমরা স্বাভাবিক পরিবেশে ফিরিয়ে নিয়ে আসবো।”

Related Articles

Back to top button