নিউজপলিটিক্সরাজ্য

“ভোটের সময় যারা বলেছিলো সোনার বাংলা বানাবো তাদের আর হদিশ পাওয়া যাচ্ছে না।”- ঘাটালে বন্যা পরিস্থিতি দেখতে গিয়ে বললেন দেব

নিজস্ব প্রতিবেদন: প্রবল বৃষ্টিতে দক্ষিণবঙ্গের হুগলির অন্তর্গত ঘাটাল, খানাকুল , আরামবাগে নদীবাঁধ ভেঙে বন্যা পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। ঘাটালের বিস্তীর্ণ অঞ্চল টানা চারদিন ধরে জলমগ্ন হয়ে রয়েছে। ইতিমধ্যেই ঘাটালে মোতায়েন রয়েছে বিপর্যয় মোকাবিলা দপ্তরের কর্মীরা। ঘাটালের বিভিন্ন জায়গা থেকে হাজার হাজার মানুষকে উদ্ধার করে ত্রাণশিবিরে পাঠানো হয়েছে।

সমগ্র ঘাটালের বহু এলাকায় জল ঢুকে গিয়েছে। ভয়াবহ বন্যা পরিস্থিতির মুখোমুখি হয়েছেন ঘাটালবাসী। একতলা বাড়ি গুলির প্রায় বেশীরভাগ অংশটাই জলের তলায় ডুবে গিয়েছে বলে জানা গিয়েছে।এছাড়াও হাওড়ার উদয়নারায়ণপুরে , আমতায় বহু গ্রাম জলের তলায় চলে গিয়েছে।

আরও পড়ুন-আবার বিজেপির অস্বস্তি বাড়ালেন সৌমিত্র খাঁ।

দামোদর এবং রূপনারায়ণের জল ঢুকেই এই সমস্যার সূত্রপাত হয়েছে। আজ হাওড়া এবং হুগলির বন্যা কবলিত এলাকা গুলি পরিদর্শন করবেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এমনটাই স্থির হয়েছিলো। ‌ কিন্তু খারাপ আবহাওয়ার দরুণ হুগলির ঘাটাল এবং খানাকুলে যেতে পারেননি মুখ্যমন্ত্রী। এদিকে জলমগ্ন ঘাটালের পরিস্থিতি দেখতে আজ‌ই ঘাটালে উপস্থিত হয়েছেন অভিনেতা তথা ঘাটালের তৃণমূল সাংসদ দেব।

তৃণমূল সাংসদ দেব আজ ঘাটালে উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি খতিয়ে দেখেছেন। তিনি ইতিমধ্যেই প্রশাসনকে অনুরোধ জানিয়েছেন ঘাটালের বন্যা পরিস্থিতিতে উপযুক্ত পদক্ষেপ নেওয়ার জন্য। গতবারের বন্যার সময়েও নৌকায় চেপে সমস্ত পরিস্থিতি খতিয়ে দেখেছিলেন অভিনেতা। তিনি জানিয়েছেন তিনি এলাকাবাসীর দুঃখ দূর্দশা দূর করতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেবেন।

আরও পড়ুন-দিলীপ ঘোষের সাথে মতানৈক্যের কারণে বিজেপি ছাড়ছেন আরো এক বিজেপি নেতা।

ঘাটাল থেকে তিনি এই ভয়াবহ পরিস্থিতিতে কেন্দ্রীয় সরকারের প্রতি আক্রমণ শানিয়েছেন। অভিনেতা তথা তৃণমূল সাংসদ দেব বলেছেন,”আমি আজ বলতে বাধ্য হচ্ছি যে যতদিন পর্যন্ত মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ভারতের প্রধানমন্ত্রী পদে আসীন না হবেন ততদিন এই ঘাটাল মাস্টার প্ল্যান বাস্তবায়িত হবে না। আর যদি এই সরকার‌ই থাকে, তাহলে তো আর হবেই না। ঘাটালের প্রতিটি মানুষ খুবই কষ্ট ভোগ করছেন।

যারা ভোটের আগে বলেছিলো যে সোনার বাংলা বানাবো, এই বানাবো, সেই বানাবো আজ তাদের কোনো দেখা পাওয়া যাচ্ছে না। বাংলার পক্ষ থেকে বহুবার কেন্দ্রীয় সরকারকে চিঠি দিয়ে অনুরোধ করা হয়েছে ঘাটাল মাস্টার প্ল্যান বাস্তবায়িত করার জন্য, কিন্তু কেন্দ্রীয় সরকার কোনো কর্ণপাত করছে না। তাই আমাদের মুখ্যমন্ত্রী কে আগামীদিনে প্রধানমন্ত্রী করতেই হবে।”

Related Articles

Back to top button