“এবার‌ও ঝড় সামলে‌ দেবো , সকলকে সতর্ক থাকতে হবে।”- বললেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

“এবার‌ও ঝড় সামলে‌ দেবো , সকলকে সতর্ক থাকতে হবে।”- বললেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

নিজস্ব প্রতিবেদন: পশ্চিমবঙ্গের বুকে সন্ত্রাসের কালো মেঘের সৃষ্টি করেছে করোনা ভাইরাস। এই ভাইরাসের কবলে পড়ে প্রাণ হারিয়েছেন বহু মানুষ। এখনো পর্যন্ত এই ভাইরাসের হাত থেকে পুরোপুরি নিস্তার পাওয়ার ভরসাযোগ্য উপায় খুঁজে বের করতে অসমর্থ হয়েছেন বিজ্ঞানীরা। যদিও ভারতে কোভিশিল্ড এবং কোভ্যাক্সিনের টীকা দেওয়া চালু রয়েছে, তবুও এই ভ্যাকসিন নেওয়ার পরেও অনেকেই আক্রান্ত হচ্ছেন কোভিডে এমন উদাহরণ মিলছে ঝুরি ঝুরি।

পশ্চিমবঙ্গের মাটিতেও রীতিমতো তান্ডব চালাচ্ছে করোনা ভাইরাস। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বারবার প্রধানমন্ত্রীকে অনুরোধ করছেন পর্যাপ্ত পরিমাণে টীকা এবং অক্সিজেন পাঠাতে। সারা বাংলা মৃত্যুভয়ে তটস্থ হয়ে রয়েছে। অনেকেই আবার সেই লকডাউনের আশঙ্কা করে রীতিমতো আতঙ্কে রয়েছেন। প্রধানমন্ত্রী তাঁর ভাষণে বলেছেন যে, করোনার সন্ত্রাস থেকে মুক্তির চূড়ান্ত উপায় হল লকডাউন।

আরও পড়ুন-কবি শঙ্খ ঘোষের প্রয়াণে শোকজ্ঞাপন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের

কিন্তু পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়ে দিয়েছেন যে বাংলার বুকে এখনই লকডাউন করা হচ্ছে না। ‌তিনি বলেছেন, “লকডাউনে যথেষ্ট আর্থিক ক্ষতি হয়ে গিয়েছে। সকলে আতঙ্কিত না হয়ে এবারও আমরা সবাই সতর্ক হয়ে ঝড় সামলাবো। যাদের মৃদু উপসর্গ থাকবে , তারা সেফ হাউসে থাকবেন, একমাত্র যাদের অবস্থা গুরুতর তারা হাসপাতালে থাকবেন।

সারাক্ষণ অসুস্থ তারা হোম আইসোলেশনে থাকতে পারেন। শেফাউল গুলিকে হাসপাতালের সাথে সংযুক্ত করা হয়েছে । এই মুহূর্তে হাসপাতালে ১১ হাজার বেড মোতায়েন রয়েছে। অক্সিজেনের যোগান অনেকটাই কম রয়েছে। পর্যাপ্ত অক্সিজেন জোগাড় করার প্রচেষ্টা চালানো হচ্ছে। কেউ যদি অক্সিজেনের দাম বাড়ায় বা অতিরিক্ত অক্সিজেন মজুত করে তাকে শাস্তি দেওয়া হবে।”