এবার রাজ্যের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে আবেদন বিরোধী দলনেতা শুভেন্দুর

এবার রাজ্যের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে আবেদন বিরোধী দলনেতা শুভেন্দুর

নিজস্ব প্রতিবেদন: গত বুধবার তৃণমূলের পাশাপাশি বিজেপি তাদের নিহত কর্মীদের শ্রদ্ধার্ঘ্য জানাতে শহীদ দিবস পালন করেছে। বিজেপি দাবি করেছে গত ২০১৮ র পঞ্চায়েত ভোটের পরবর্তী সময় থেকে তৃণমূলের হাতে তাদের ১০০ র’ও বেশী কর্মী নিহত হয়েছেন। তাই তাদের শ্রদ্ধার্ঘ্য জানাতে বিজেপি শহীদ দিবস পালন করেছে বলে জানা গিয়েছে। রাজ্যের বিভিন্ন জেলায় এই কর্মসূচি পালন করা হয়েছে বলে জানিয়েছে বিজেপি নেতৃত্ব।

দিল্লিতে শহীদ দিবস পালন করছে বিজেপি। গত বুধবার সকাল সাড়ে এগারোটায় দিল্লিতেও বিক্ষোভ দেখিয়েছে বিজেপি।বিজেপির শহীদ দিবসের কর্মসূচিতে যোগদান করে বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী বলেছেন, “পশ্চিমবঙ্গের মাটি থেকে তৃণমূলকে উপড়ে ফেলার জন্য যা যা করার সব করবো। শুভেন্দু সবকিছু করবে।

আরও পড়ুন-একুশের ভোটের পর দিল্লিতে প্রথম মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সাক্ষাৎ হতে চলেছে।

বিধানসভার উপনির্বাচন করানোর জন্য নির্বাচন কমিশনের উপর চাপ সৃষ্টি করছে রাজ্য সরকার। কিন্তু রাজ্যের ১১০ টা পৌরসভা এবং পৌরনিগমে ভোট করতে দিচ্ছেন না মুখ্যমন্ত্রী।”শুভেন্দুর দেহরক্ষীর মৃত্যুতে সিআইডি তদন্ত শুরু হয়েছে। এছাড়াও গত মঙ্গলবার ৫০ জনের‌ও বেশী লোক নিয়ে জনসভা করার অপরাধে শুভেন্দুর বিরুদ্ধে এফ‌আইআর দায়ের করেছে পুলিশ।

আরও পড়ুন-“তৃণমূলকে বাংলা থেকে উচ্ছেদ করতে যা করতে হয় তাই করবো।”- শহীদ মঞ্চ থেকে হুঙ্কার শুভেন্দুর

এছাড়াও সরকারি আধিকারিকদের ফোনে আড়িপাতার অভিযোগের বিষয়ে অফিশিয়াল সিক্রেটস আইনে শুভেন্দু অধিকারীর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে ।পুলিশের অভিযোগের পাল্টা অভিযোগ করেছেন শুভেন্দু। তিনি বলেছেন, “পুলিশ এফআইআর করুক, পুলিশের কাজই হচ্ছে মামলা করা। করোনা বিধিকে অগ্রাহ্য করে দিনের পর দিন বিধিনিষেধের মধ্যে পেট্রোল, ডিজেলের মূল্যবৃদ্ধি নিয়ে তৃণমূলের মিছিল বেরিয়েছে।

তখন তো কেউ দেখতে পায়নি। দলদাস পুলিশ কিছুই করতে পারবে না।”এবার এই পরিস্থিতিতে হাইকোর্টের দ্বারস্থ হচ্ছেন শুভেন্দু অধিকারী। তিনি দাবি করেছেন যে, “হয় এফ‌আইআর খারিজ করা হোক, নাহলে এই মামলা সিবিআইয়ের হাতে অর্পণ করা হোক।”