নিউজপলিটিক্সরাজ্য

এবার ৭৫ বছরেই অবসর নেওয়া বাধ্যতামূলক করল সিপিএম নেতৃত্ব।

নিজস্ব প্রতিবেদন: দীর্ঘ ৩৪ বছর বাম জমানার শেষ হয় তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা ব্যানার্জির হাত ধরে। সিঙ্গুর এবং নন্দীগ্রাম আন্দোলনের পর কার্যত বাম ব্রিগেড ধ্বংসের মুখে পড়ে। যে বামপন্থা আদর্শ নিয়ে চলত সিপিআইএম সেই আদর্শ অনেকটাই ধাক্কা খায় যুব সমাজের কাছে। তারপর কেটে গিয়েছে দশ দশটা বছর ।

একুশের নির্বাচনে বাংলার মানুষ বেছে নিয়েছেন আবার তৃণমূলকেই। একুশের ভোটে বামফ্রন্ট বেশ কিছু তরুণ মুখগুলোকে প্রার্থী করে যথেষ্ট লড়াই করেছিল তৃণমূলের বিরুদ্ধে। তবে এই লড়াইয়ে তাদের হারের মুখ দেখতে হয়েছে। রাজ্য রাজনীতিতে এই প্রথম বিধানসভায় একটাও বাম নেতা নেই।

আরও পড়ুন-“জাতীয় মানবাধিকার কমিশন কোথায়?”- ত্রিপুরা কান্ডে প্রশ্ন তুললেন কুণাল ঘোষ

বামফ্রন্টের জোটশরিক আইএস‌এফের ভাঙড়ের বিধায়ক নওশাদ সিদ্দিকী শুধুমাত্র জয়লাভ করেছেন।এই আবহের মধ্যে বহু ভাবনাচিন্তার পর সিপিএম নেতৃত্ব তাদের সদস্যদের বয়সের উর্ধ্বসীমা বেঁধে দিয়েছে । জানা গিয়েছে সিপিএম কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্যদের সদস্য পদ নির্ধারিত করে দিয়েছে। আগে সিপিএম সদস্যদের বয়সের উর্ধ্বসীমা ছিল ৮০ ।

এই উর্ধ্বসীমা কমিয়ে করা হয়েছে ৭৫ বছর। জানা গিয়েছে এই বয়সের পর কাউকে সিপিএমের সদস্য পদ দেওয়া হবে না। সিপিএমের সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরি সাংবাদিক বৈঠকে এই বিষয়টি ঘোষণা করেছেন।জানা গেছে গত ৬ থেকে ৮ ই আগস্ট সিপিএমের কেন্দ্রীয় কমিটির বৈঠক সম্পন্ন হয়েছে।

আরও পড়ুন-সংসদে ত্রিপুরা নিয়ে তৃণমূলের সাথে বিক্ষোভ দেখালেন সুনীল মন্ডল। সুর নরম তৃণমূলের

এই কেন্দ্রীয় কমিটির বৈঠকে এই প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। ‌ তবে আগামী ২০২২ সালের এপ্রিল মাস নাগাদ এই প্রস্তাবে চূড়ান্ত সম্মতি জ্ঞাপন করবে দলীয় শীর্ষ নেতৃত্ব।সিপিএম পলিটব্যুরোর মধ্যে সবথেকে বয়স্ক সদস্য হলেন এস রামচন্দ্রন পিল্লাই , তাঁর বর্তমান বয়স ৮৩ বছর। কেরলের মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়ন ৭৬ বছর বয়সী।

তাই নতুন নিয়ম মাফিক তাকে অবিলম্বে পলিটব্যুরো থেকে পদত্যাগ করতে হবে। ‌ কিন্তু সেই ব্যাপারে এখনও চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়নি সিপিএমের কেন্দ্রীয় কমিটি।

Related Articles

Back to top button