এবার রাঢ়বঙ্গ ভেঙে আলাদা রাজ্যের দাবী তুললেন বিজেপি সাংসদ সৌমিত্র খাঁ।

এবার রাঢ়বঙ্গ ভেঙে আলাদা রাজ্যের দাবী তুললেন বিজেপি সাংসদ সৌমিত্র খাঁ।

নিজস্ব প্রতিবেদন: সম্প্রতি রাজ্যের রাজনীতির আঙিনায় উত্তরবঙ্গকে ঘিরে ব্যাপক বিতর্কের সূত্রপাত হয়েছে। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ক্ষমতায় আসীন হওয়ার পর থেকেই উত্তরবঙ্গের উন্নয়নে বেশ কিছু উল্লেখযোগ্য পরিকল্পনা গ্রহণ করেছিলেন। এরমধ্যে বহুবার তিনি উত্তরবঙ্গ সফরে গিয়েছেন। সম্প্রতি আলিপুরদুয়ারের বিজেপি সাংসদ জন‌বারলা উত্তরবঙ্গ কে আলাদা কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়ার জোরালো দাবি করেছেন।

তিনি কাশ্মীরের ৩৭০ ধারা বাতিল করার প্রসঙ্গ উল্লেখ করে বলেছেন, “চিরটা কাল দক্ষিণবঙ্গ উত্তরবঙ্গের সাথে প্রতারণা করেছে। তাই অবিলম্বে উত্তরবঙ্গ আলাদা কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল হিসেবে ঘোষণা করা হোক। উত্তরবঙ্গ উন্নয়নের জন্য কেন্দ্র যা টাকা পাঠাচ্ছে সেই টাকা কোথায় যাচ্ছে তা কেউ জানতে পারছে না। এদিকে অসম থেকে নেপাল সীমানা বরাবর জাতীয় সড়কের পার্শ্ববর্তী এলাকাগুলিতে বাংলাদেশি রোহিঙ্গারা জবরদখল করে রয়েছে।

আরও পড়ুন-অমিত শাহের সাথে বৈঠকের পরেই উত্তরবঙ্গ সফরে যাচ্ছেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়।

মুহুর্তের মধ্যেই তাদের আধার কার্ড, রেশন কার্ড হয়ে যাচ্ছে। এদিকে উত্তরবঙ্গের বহু মানুষ রেশন থেকে বঞ্চিত হচ্ছে।”জন বারলার এই মন্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে তার বিরুদ্ধে দিনহাটা থানায় অভিযোগ দায়ের করেছে তৃণমূল। জনের এই মন্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে মুখে কুলুপ এঁটে রয়েছে বিজেপিও।

এই আবহে ঠিক এরকমই একটি মন্তব্য করে বিজেপির অস্বস্তির আগুনে ঘি ঢাললেন বিজেপি সাংসদ সৌমিত্র খাঁ। জন বারলারের মতো তিনিও এবার রাঢ়বঙ্গকে ভেঙে আলাদা রাজ্যের প্রসঙ্গ উত্থাপন করলেন। তিনি বলেছেন,”আগামী দিনে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রধানমন্ত্রী হওয়ার স্বপ্নে বিভোর হয়ে রয়েছেন। তিনি পশ্চিমবঙ্গ কে ভেঙে আরেকটি বাংলাদেশ তৈরি করার প্রচেষ্টায় রয়েছেন।

আরও পড়ুন-“অনেকেই পরিস্থিতির চাপে মুখ ঘুরিয়ে নিয়েছেন।”- রাজীব প্রসঙ্গে মন্তব্য দিলীপ ঘোষের

আমরাও এবার রাঢ়বঙ্গকে ভেঙে আলাদা একটা রাজ্য গঠনের দাবী উত্থাপন করবো। বাঁকুড়া, জঙ্গলমহল, পুরুলিয়া নিয়ে আলাদা রাঢ়বঙ্গ গঠিত হবে। মুখ্যমন্ত্রী দিল্লি নেতাদের বারবার বহিরাগত বলেছেন। তেমনি উত্তরবঙ্গ আর রাঢ়বঙ্গের মানুষজন মুখ্যমন্ত্রীকে বহিরাগত বলতেই পারে।

তিনি রাঢ়বঙ্গের জন্যেও কিছু করেননি এবং উত্তরবঙ্গের জন্য‌ও কিছু করেননি।”এদিকে বিজেপি শীর্ষ নেতারা স্পষ্ট বুঝিয়ে দিয়েছেন যে বঙ্গভঙ্গের বিষয়ে কোনো রকম আলোচনা দল সমর্থন করবে না। এই পরিস্থিতিতে বিজেপি সাংসদ সৌমিত্র খাঁ এর মন্তব্য আবার নতুন করে বিতর্কের উন্মেষ ঘটিয়েছে।