মহারাষ্ট্রের পালঘরে কোভিড হাসপাতালে আগুন লেগে মৃত ১৩ রোগী।

মহারাষ্ট্রের পালঘরে কোভিড হাসপাতালে আগুন লেগে মৃত ১৩ রোগী।

নিজস্ব প্রতিবেদন: সারা দেশ জুড়ে প্রবল শক্তি সঞ্চয় করে আছড়ে পড়েছে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ। লাফিয়ে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। সারাদেশব্যাপী এক ভয়াবহ মৃত্যুর আতঙ্কের সূচনা হয়েছে। সারা দেশের মধ্যে এই মহামারীতে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে অগুনতি মানুষের। মহারাষ্ট্রের অবস্থা সবথেকে শোচনীয়। মহারাষ্ট্র এবং দিল্লিতে জারি হয়েছে সাময়িক লকডাউন। দিল্লির অবস্থা যথেষ্ট শোচনীয়। পশ্চিমবঙ্গের বুকে মৃত্যু মিছিল জারি রয়েছে এই ভাইরাসের প্রভাবে। মহারাষ্ট্র বর্তমানে সংক্রমণের নিরিখে প্রথম স্থানে রয়েছে। মহারাষ্ট্রে ইতিমধ্যেই আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ৪০ লক্ষ।

কয়েকদিন আগেই নাসিকে একটি হাসটাতালে অক্সিজেনের ট্যাংকার লিক করে প্রাণ গিয়েছে ১৪ জন করোনা রোগীর। এবার আরেকটি অমানবিক ঘটনা ঘটেছে মহারাষ্ট্রের পালঘরের কোভিড হাসপাতালে। পালঘরের বিজয় বল্লভ হাসপাতালে আইসিইউতে আগুন লেগে মৃত্যু হয়েছে ১৩ জন রোগীর। জানা গিয়েছে আজ ভোর সাড়ে তিনটের সময় ওই হাসপাতালের আইসিইউ বিভাগে আগুন লেগে যায়। সম্ভবত শর্ট সার্কিটের কারণে এই আগুন লেগেছে বলে জানা গিয়েছে। ‌

আরও পড়ুন-দেশজুড়ে অক্সিজেন সঙ্কট। লক্ষ্ণৌ , দিল্লির হাসপাতালে আতঙ্ক

মুহুর্তের মধ্যে এই আগুন ছড়িয়ে পড়ে আইসিইউতে। ‌ এই দুর্ঘটনায় আইসিইউ তে থাকা ১৩ জন আক্রান্তের মৃত্যু হয়। কয়েকজনের অবস্থাও যথেষ্ট গুরুতর। হাসপাতলের দুই তলায় এই ভয়াবহ ঘটনাটি ঘটেছে। দমকল কর্মীরা এক ঘন্টার মধ্যেই আগুন নিয়ন্ত্রণে আনলেও ততক্ষণে মারা গিয়েছেন ১৩ জন হতভাগ্য রোগী।নিহত রোগীদের আত্মীয়রা হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে গাফিলতির অভিযোগ তুলে যথেষ্ট বিক্ষোভ দেখিয়েছেন।

তারা দাবি করেছেন যারা আই সি ইউ এর তত্ত্বাবধানে ছিল তাদের কাজে গাফিলতি জন্যই প্রিয়জনকে হারিয়েছেন তারা। অভিযুক্ত কর্মীদের শাস্তির দাবিতে ব্যাপক বিক্ষোভ চলছে হাসপাতাল চত্বরে। এদিকে মহারাষ্ট্রের মন্ত্রী একনাথ শিন্ডে মৃতদের পরিজনদের ৫ লক্ষ টাকা দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছেন।হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে আইসিইউ এর এসি ইউনিটে গন্ডগোলের কারণেই আগুন ধরে যায় আইসিইউতে।