“আলাপনের ক্ষেত্রে কেন্দ্রীয় সরকারের হস্তক্ষেপের কোনো প্রয়োজন নেই।”- আলাপন ইস্যুতে তাঁর পক্ষ নিলেন অধীর চৌধুরী।

“আলাপনের ক্ষেত্রে কেন্দ্রীয় সরকারের হস্তক্ষেপের কোনো প্রয়োজন নেই।”- আলাপন ইস্যুতে তাঁর পক্ষ নিলেন অধীর চৌধুরী।

নিজস্ব প্রতিবেদন: সম্প্রতি আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায় এর আচার এবং ব্যবহার নিয়ে প্রশ্ন চিহ্ন তুলে নিয়ে অল ইন্ডিয়া সার্ভিসের ৮ নম্বর ধারা অনুযায়ী তার বিরুদ্ধে শাস্তি মূলক ব্যবস্থা গ্রহণে সচেষ্ট হয়েছে কেন্দ্রের কর্মীবর্গ দপ্তর। এই মর্মে আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায় কে চিঠি দিয়ে জানানো হয়েছে যে এই চিঠি পাওয়ার আগামী ৩০ দিনের মধ্যে তাঁকে আত্মপক্ষ সমর্থন করতে হবে এবং তিনি সশরীরে হাজির আজকে এই চিঠির উত্তর দেবেন কিনা তাও জানাতে হবে। তিনি যদি এই চিঠির নির্ধারিত সময়ের মধ্যে উত্তর না দেন তাহলে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ কড়া ব্যবস্থা নেবে।

এর ফলে তার অবসরকালীন সুযোগ-সুবিধার উপরে কোপ পড়তে পারে বলে সতর্ক করেছে কেন্দ্রীয় কর্মীবর্গ দপ্তর। আর এই চিঠির প্রাপ্তির পরেই রাজ্য তৃণমূল নেতারা যথেষ্ট ক্ষোভ উগড়ে দিয়েছেন কেন্দ্রীয় সরকারের উপরে। তৃণমূল নেতা সৌগত রায়, সুখেন্দু শেখর রায় সহ অনেকেই তীব্র বিরোধিতা করেছে কেন্দ্রীয় সরকারের এই চিঠির। তৎকালীন মুখ্যসচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায় তাঁর পদ থেকে রিটায়ার করেছেন।

আরও পড়ুন-“সৎ বাঙালি অফিসারকে অপমানের চেষ্টা করছে বিজেপি।”- আলাপন ইস্যুতে সরব তৃণমূল।

বর্তমানে তিনি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মুখ্য উপদেষ্টা পদে নিযুক্ত রয়েছেন।এবার আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায় এর বিরুদ্ধে কেন্দ্রের এই চিঠির পরিপ্রেক্ষিতে আলাপনের পাশে দাঁড়িয়েছেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর রঞ্জন চৌধুরী। তিনি বলেছেন,”আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায় রাজ্যের মুখ্য সচিব পদে আসীন ছিলেন। ‌ তিনি রিটায়ার হওয়ার পর তাঁকে মুখ্যমন্ত্রী নতুন দায়িত্বভার অর্পণ করেছেন।

আরও পড়ুন-“প্রশান্ত কিশোর আমাদের ভাগ্যবিধাতা নন”- শরদ পাওয়ারের সাথে বৈঠক প্রসঙ্গে বললেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর রঞ্জন চৌধুরী।

তাই এখন দিল্লির হুঁশিয়ারির মুখে পড়েছেন আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায় । কেন্দ্রীয় সরকার ক্ষমতার অপব্যবহার করছে। তবে আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায় কেন্দ্রীয় সরকারের কিভাবে মোকাবিলা করবেন তা তিনি ভালভাবেই জানেন বলে আমি আশা করছি। ‌ দিল্লির এই উদ্যোগ সম্পূর্ণ নিষ্প্রয়োজনীয়।”