রাজ্যজুড়ে হতে চলেছে ব্যাপক বৃষ্টিপাত। মৎস্যজীবীদের সমুদ্রে যেতে নিষেধ করল আবহাওয়া দপ্তর।

রাজ্যজুড়ে হতে চলেছে ব্যাপক বৃষ্টিপাত। মৎস্যজীবীদের সমুদ্রে যেতে নিষেধ করল আবহাওয়া দপ্তর।

নিজস্ব প্রতিবেদন: গত কয়েকদিন ধরেই টানা বৃষ্টি হয়ে চলেছে কলকাতা সহ দক্ষিণবঙ্গ জুড়ে। কলকাতার বিস্তীর্ণ জায়গায় ব্যাপক জল জমে গিয়েছে। বহু বাড়ির একতলায় জল ঢুকে গিয়েছে। রীতিমতো শোচনীয় পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে বিভিন্ন জায়গায়।

টানা বৃষ্টিতে কলকাতার বহু জায়গা জলমগ্ন হয়েছে। কলকাতার পার্কস্ট্রিট থেকে শুরু করে ক্যামাক স্ট্রিট, আমহার্স্ট স্ট্রিট সহ অনেক জায়গাতেই ব্যাপক জল জমে গিয়েছে। এছাড়াও কলকাতার সায়েন্স সিটির এলাকা, পার্ক সার্কাস, যাদবপুর, বেহালা, বাগবাজারের বিস্তীর্ণ অঞ্চল জলমগ্ন হয়ে পড়েছে। এছাড়াও দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন জেলায় ব্যাপক বৃষ্টিপাতের ফলে বিস্তর সমস্যার মুখোমুখি হয়েছেন মানুষজন।

আরও পড়ুন-রাজ্যে নীচে নামলো দৈনিক করোনা আক্রান্তের হার

আরামবাগ এবং ঘাটালে বন্যা পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। দ্বারকেশ্বর নদীতে জলস্ফীতির দরুণ আরামবাগে বন্যা দেখা দিয়েছে বেশ কিছু জায়গায়। এদিকে ডিভিসি জল ছাড়ায় এবং তার সাথে ব্যাপক বৃষ্টিপাতের ফলে বেশ কিছু নদীতে জল বয়ে যাচ্ছে বিপদসীমার উপর দিয়ে।আবহাওয়া দপ্তর জানিয়েছে গাঙ্গেয় দক্ষিণবঙ্গের নিম্নচাপ অক্ষরেখা সৃষ্টি হয়েছে সেই অক্ষরেখা উত্তর প্রদেশ বিহার পর্যন্ত বিস্তৃত হয়ে রয়েছে।

যার দরুন আজ দক্ষিণবঙ্গের বিস্তীর্ণ অঞ্চলজুড়ে ব্যাপক বৃষ্টিপাত ঘটবে। আগামীকাল রবিবার ঠিক একই পরিস্থিতি জারি থাকবে দক্ষিণবঙ্গে। কলকাতাসহ দক্ষিণবঙ্গের বিস্তীর্ণ এলাকায় হালকা থেকে মাঝারি আবার কোথাও অতি ভারী বৃষ্টির দেখা মিলতে পারে। এর ফলে ব্যাহত হবে নগর জীবন।

আরও পড়ুন-টানা বৃষ্টির বিরাম কবে? জানালো আবহাওয়া দপ্তর

উত্তরবঙ্গের দার্জিলিং, কালিম্পং, জলপাইগুড়ি ,আলিপুরদুয়ার, কোচবিহার প্রভৃতি জেলাগুলিতে অতি ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস রয়েছে। দক্ষিণবঙ্গের কলকাতাসহ হাওড়া, হুগলি, নদীয়া, পুরুলিয়া, বীরভূম, বাঁকুড়া, দুই বর্ধমান, দুই মেদিনীপুর, দুই ২৪ পরগণায় হাল্কা থেকে ভারী বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে। আলিপুর আবহাওয়া দপ্তর এই দুইদিন মৎস্যজীবীদের সমুদ্রে যেতে নিষেধ করেছে।