আগামী ১৫ ই জুন থেকে শুরু হবে বড়োবাজারের পোস্তায় উড়ালপুল ভাঙার কাজ।

আগামী ১৫ ই জুন থেকে শুরু হবে বড়োবাজারের পোস্তায় উড়ালপুল ভাঙার কাজ।

নিজস্ব প্রতিবেদন: কলকাতার বড়বাজারের পোস্তায় উড়ালপুল ভেঙে পড়ে ২০১৬ সালে ২৭ জন মৃত্যুমুখে পতিত হয়েছিলেন। জখম হয়েছিলেন ৮০ জন মানুষ। বিবেকানন্দ উড়ালপুলের ১৫০ মিটার অংশ ভেঙে পড়ার পরেই খড়গপুর আইআইটির তিন বিশেষজ্ঞ এবং তৎকালীন মুখ্যসচিব বাসুদেব বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে একটি তদন্ত কমিটি গঠিত হয়েছিল। ফ্লাইওভার নির্মাণকারী সংস্থা হায়দ্রাবাদের আইভিআরসিএলের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছিল। এই তদন্তকারী কমিটি রিপোর্টে জানিয়েছিল যে উক্ত উড়ালপুলের নকশায় যথেষ্ট ভুল ছিলো।

সেই সাথে উড়ালপুল নির্মাণের জন্য যে ধরনের মশলা এবং অন্যান্য সরঞ্জাম ব্যবহার করা হয়েছে তা গুণগত দিক দিয়ে যথেষ্ট নিম্নমানের ছিল।জানা গিয়েছে আগামী ১৫ ই জুন থেকে পোস্তার ওই উড়ালপুলটি সম্পূর্ণভাবে ভেঙে ফেলার কাজ শুরু হতে চলেছে। ভগ্নপ্রায় এই উড়ালপুলটির অংশ আস্তে আস্তে ভেঙে সরিয়ে দেওয়া হবে। এই ভাঙ্গার কাজে চারটি সংস্থাকে দায়িত্ব প্রদান করেছে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকার।

আরও পড়ুন-মুখ্যমন্ত্রী মমতার উদ্দেশ্যে কটু কথা বলার প্রতিবাদ করায় মারধর করা হল তৃণমূল নেতাকে। গ্রেফতার অভিযুক্ত।

জানা গিয়েছে এই ধ্বংসাবশেষ সরাতে প্রায় ৪৫ দিনের‌ও বেশি সময় লাগতে পারে। তবে উড়ালপুল ভাঙার কাজ চলাকালীন উড়ালপুলের নিচে রাস্তায় ট্রাফিক রুটের বেশ কয়েকটি পরিবর্তন দেখা দিতে পারে। এই মর্মে খুব শীঘ্রই কলকাতা পুলিশ বিজ্ঞপ্তি জারি করতে চলেছে। উড়ালপুল ভাঙ্গাকালীন উড়ালপুলের নিচে রাস্তায় যান নিয়ন্ত্রণ করা হবে বলে জানা গিয়েছে।কয়েকদিন আগেই কলকাতা মেট্রোপলিটন ডেভেলপমেন্ট অথরিটি, পোস্তার ব্যবসায়ী সংগঠন, পুরসভার শীর্ষ অফিসার এবং কলকাতা পুলিশের সাথে একটি বৈঠক সম্পন্ন করেছেন পরিবহন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম। উক্ত বৈঠকেই এই সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে বলে জানা গিয়েছে।