অসমের পথ ধরে এবার উত্তরপ্রদেশের বুকেও চালু হতে চলেছে ‘দুই সন্তান নীতি’।

অসমের পথ ধরে এবার উত্তরপ্রদেশের বুকেও চালু হতে চলেছে ‘দুই সন্তান নীতি’।

নিজস্ব প্রতিবেদন: প্রথম থেকেই নানান ঘটনায় শিরোনামে উঠে এসেছে যোগী শাসিত রাজ্য উত্তরপ্রদেশ। কয়েকদিন আগেই যোগী আদিত্যনাথ কে দিল্লিতে ডেকে পাঠিয়েছিলেন বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব। তার সাথে অনেকক্ষণ ধরে বৈঠক করেছেন প্রধানমন্ত্রী এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। উত্তরপ্রদেশের মাটিতে পঞ্চায়েত নির্বাচনে বিজেপি যথেষ্ট খারাপ ফলাফল করেছে।

তার উপর করোনার মোকাবিলায় যোগী সরকারের ব্যর্থতা সকলের সামনে উপস্থিত হয়েছে। আগামী বছরেই বিধানসভা ভোট রয়েছে। এই ভোটে যদি বিজেপির ভরাডুবি হয় তাহলে আগামী ২০২৪ এর লোকসভা ভোটে বিজেপির আসন অনেকটাই টলোমলো হয়ে যাবে। প্রধানমন্ত্রীর একান্ত ইচ্ছা তার অত্যন্ত বিশ্বস্ত আর কে সিংহকে উত্তরপ্রদেশের উপমুখ্যমন্ত্রী বানানো।

আরও পড়ুন-সম্পত্তি বিক্রি করে কোটি টাকার অত্যাধুনিক গ্যাজেট কিনেছিলো আসিফ। মালদা-কান্ডে ঘনীভূত হচ্ছে রহস্য।

কিন্তু প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর এই ইচ্ছার বিরুদ্ধাচারণ করছেন যোগী আদিত্যনাথ।এবার জানা গিয়েছে খুব শীঘ্রই জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণের জন্য অসমের পথ ধরেই দুই সন্তান নীতি লাগু করতে চলেছে যোগী প্রশাসন।জানা গিয়েছে উত্তরপ্রদেশের আইন কমিশন এই বিষয়টি ভালোভাবে বিশ্লেষণ করে খুব শীঘ্রই মুখ্যমন্ত্রীকে একটি রিপোর্ট পেশ করবে। এমনিতেই উত্তরপ্রদেশের মাটিতে বেশকিছু গুরুত্বপূর্ণ আইন ইতিমধ্যে লাগু করা।

আরও পড়ুন-ভারত খুব শীঘ্রই এক বিশ্ব এক স্বাস্থ্যের পথ দেখাবে সকলকে।”- যোগদিবসে বললেন প্রধানমন্ত্রী

এবার দুই সন্তান নীতি’ লাগু করতে চলেছে যোগী সরকার। যোগী আদিত্যনাথ এখনো স্পষ্টভাবে কিছু ঘোষণা করেননি, তবে জানা গিয়েছে এবার থেকে উত্তর প্রদেশের মাটিতে দুটির বেশি সন্তান নিলে তারা সমস্ত রকম সরকারি প্রকল্প এবং সুযোগ-সুবিধা থেকে বঞ্চিত হবে। উত্তরপ্রদেশের জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণের জন্য এই খসড়া আইনের প্রস্তাব দিয়েছে উত্তরপ্রদেশ প্রশাসন।

কয়েকদিন আগেই অসমের মুখ্যমন্ত্রী হেমন্ত বিশ্বশর্মা বলেছেন যে, রাজ্যে বিশেষ কিছু পরিকল্পনা শুধুমাত্র দুই সন্তান থাকলে পাওয়া যাবে না। কিন্তু শিক্ষা, বাসস্থান এগুলির ক্ষেত্রে দুই সন্তান নীতি লাগু হবে না।