নিউজকলকাতাপলিটিক্স

একুশে জুলাইয়ের স্মৃতিতে শহরের বুকে ট্রামযাত্রা করতে চলেছে তৃণমূল কংগ্রেস

নিজস্ব প্রতিবেদন: আগামীকাল ২১ শে জুলাই। তৃণমূলের শহীদ দিবস। এই দিনটিতে ১৯৯৩ সালে কলকাতায় যুব কংগ্রেস নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে রাজনৈতিক কর্মসূচিতে পুলিশের গুলিতে মৃত্যু হয়েছিলো ১৩ জনের। ওইদিনের নিহত যুব কংগ্রেস কর্মীদের শ্রদ্ধার্ঘ্য অর্পণ করতে প্রতিবছর এই দিনটিতে শহীদ দিবস পালন করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

তিনি যদিও বর্তমানে তৃণমূলের নেত্রী। কিন্তু তিনি ওইদিনের যুব কংগ্রেসের নিহত কর্মীদের আত্মবলিদানকে শ্রদ্ধা এবং সম্মান জানাতে প্রতিবছর একুশে জুলাই পালন করবেন বলে জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।তবে অন্যান্য বারের মতো বড় করে এই অনুষ্ঠান সম্পন্ন হবে না। কারণ এবারে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ সারা রাজ্য তথা দেশজুড়ে সন্ত্রাস চালাচ্ছে।

আরও পড়ুন-ত্রিপুরাতেও ভোট কুশলীর কাজে ঝাঁপিয়ে পড়েছেন প্রশান্ত কিশোর।

তাই এবারে ভার্চুয়াল মাধ্যমে এই একুশে জুলাই পালন করবে তৃণমূল। ভার্চুয়াল এই অনুষ্ঠানে বক্তৃতা রাখবেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।ভারতের আরো ৮ টি রাজ্যে শহীদ দিবস পালন করবে তৃণমূল। ভার্চুয়াল মাধ্যমে এই শহীদ‌ দিবসে বক্তব্য রাখবেন মুখ্যমন্ত্রী।

জানা গিয়েছে নরেন্দ্র মোদী এবং অমিত শাহের গড় গুজরাটের মোট ৩২ টি জেলায় বসানো হতে চলেছে জায়ান্ট স্ক্রিন। গুজরাট, দিল্লি, তামিলনাড়ু, অসম, বিহার, পাঞ্জাব, ঝাড়খন্ড, অসমে ভার্চুয়ালি শহীদ দিবস পালন করবে তৃণমূল। সমস্ত জায়গাতেই ভার্চুয়াল মাধ্যমে মুখ্যমন্ত্রীর বক্তব্য শুনতে পারবেন নাগরিকরা।এছাড়াও বিজেপির আরেকটি গড় ত্রিপুরাতেও জায়ান্ট স্ক্রিনে মুখ্যমন্ত্রীর ভাষণ শোনানো হবে।

আরও পড়ুন-“অবিলম্বে বন্ধ করতে হবে নেতা নেত্রীদের ফেসবুক ফ্যান পেজ।”- মীনাক্ষী বিতর্কে নির্দেশ আলিমুদ্দিনের।

কয়েকদিন ধরেই ত্রিপুরার আগরতলা সহ বিভিন্ন জায়গায় এই শহীদ দিবস উপলক্ষে পোস্টার ব্যানার টাঙাচ্ছেন তৃণমূল কর্মী সমর্থকরা। আগামী একুশে জুলাই সকালেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের ছবি নিয়ে ত্রিপুরার তৃণমূল কর্মীরা সাইকেল র‌্যালিতে অংশগ্রহণ করবেন । আগরতলার দুটি জায়গাতে মমতা বন্দোপাধ্যায়ের বক্তৃতা শোনানো হবে ওই দিন। এছাড়াও ত্রিপুরার গোমতী জেলার উদয়পুর এবং ধর্মনগরের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাংলা বক্তৃতার সম্প্রচারণ হবে।

আরও পড়ুন-প্রায় একযুগ আগে টাটাকে সিঙ্গুর থেকে তাড়িয়েছিলো তৃণমূল। সেই টাটাকেই বাংলায় আমন্ত্রণ জানালেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়।

আজ থেকেই কলকাতার বুকে ভার্চুয়াল মাধ্যমে একুশে জুলাই পালন করার প্রস্তুতি শুরু হয়ে গিয়েছে। আগামীকাল একুশে জুলাই উপলক্ষে একটি ট্রাম সারা শহরে শহীদদের স্মরণে ভ্রমণ করতে চলেছে। এই ট্রামটিকে সাজানো হবে পুষ্পস্তবক দিয়ে। এছাড়াও ট্রামটিতে লাগানো থাকবে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাট‌আউট এবং একুশে জুলাইয়ের নিহত যুব কংগ্রেস কর্মীদের উদ্দেশ্যে লেখা থাকবে বার্তা।

তৃণমূল কংগ্রেস জানিয়েছে আগামীকাল সকাল থেকেই এই ট্রাম যাত্রা করবে শহরের চতুর্দিকে।

Related Articles

Back to top button