“দিলীপ ঘোষের সামনেই বিক্ষোভটা হ‌ওয়া উচিৎ।”- চুঁচুড়ায় দিলীপ ঘোষের বিরুদ্ধে বিক্ষোভের প্রসঙ্গে ভাইরাল অডিও ক্লিপ।

“দিলীপ ঘোষের সামনেই বিক্ষোভটা হ‌ওয়া উচিৎ।”- চুঁচুড়ায় দিলীপ ঘোষের বিরুদ্ধে বিক্ষোভের প্রসঙ্গে ভাইরাল অডিও ক্লিপ।

নিজস্ব প্রতিবেদন: একুশের ভোটে তৃণমূল জয়লাভ করার পরেই উত্তপ্ত বাংলার রাজনৈতিক পরিস্থিতি। তৃণমূল সমর্থকদের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে বিজেপি কর্মীদের মারধর এবং তাদের বাড়ি ভাঙচুর করার । এছাড়াও জায়গায় জায়গায় বিভিন্ন বিজেপি কর্মীর বাড়িতে আগুন লাগিয়ে দেওয়ার ঘটনাও ঘটেছে। এছাড়াও বিজেপি মহিলা কর্মীদের সাথে কিছু জায়গায় অভব্য আচরণ করার অভিযোগ উঠেছে তৃণমূলের বিরুদ্ধে।

২৪ পরগণা থেকে শুরু করে বীরভূম, কোচবিহার, হাওড়া, কলকাতা, মালদা এছাড়াও বিভিন্ন জেলায় জেলায় আক্রান্ত হয়ে চলেছেন বিজেপি কর্মীরা। বেশিরভাগ ঘটনার ক্ষেত্রে এ অভিযোগের আঙুল উঠেছে তৃণমূল কর্মীদের দিকে। এই হিংসাত্মক পরিস্থিতিতে ভোট পরবর্তী সময়ে প্রাণ গিয়েছে প্রায় ১৬ জনের। এমনটাই জানিয়েছে নির্বাচন কমিশন।

আরও পড়ুন-“মাতৃবিয়োগে খোঁজ নেননি কোনো রাজ্যস্তরের বিজেপি নেতা।”- অভিমানী বিজেপি নেতা প্রবীর ঘোষাল।

এদিকে বিজেপি কর্মী সমর্থকদের মনে বাড়ছে প্রবল বিক্ষোভ। বিজেপি কর্মী সমর্থকদের অভিযোগ যে তারা নিরন্তর মার খাচ্ছেন অথচ তাদের সুরক্ষার জন্য কোন পদক্ষেপ নিচ্ছে না বিজেপি শীর্ষ নেতৃত্ব। গত শুক্রবার হুগলির চুঁচুড়ায় বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষকে ঘিরে ব্যাপক বিক্ষোভ দেখিয়েছে বিজেপির কর্মী সমর্থকরা। সেখানে দিলীপ ঘোষকে দেখা গিয়েছে বিক্ষোভরত সমর্থকদের তিনি বলছেন, ‘চেঁচাবে না, ভদ্রভাবে কথা বলো।

পার্টিটাকে কিনে নিয়েছো নাকি? ভদ্রভাবে কথা বলতে পারো না?” এদিকে এই আবহে একটি অডিও ক্লিপ ভাইরাল হয়েছে যেটা কেন্দ্র করে বিজেপির শীর্ষ নেতৃত্ব রা বলছেন সম্পূর্ণ পূর্বপরিকল্পিতভাবে দিলীপ ঘোষের সামনে এই বিক্ষোভ প্রদর্শন করা হয়েছে।এই অডিও ক্লিপে একজনকে বলতে শোনা গিয়েছে, “শোন, আজকে দিলীপ দা চারটের সময় আসছে। তোর তো অনেক বক্তব্য আছে। যারা তোর অনুগামী রয়েছে কিছু লোক নিয়ে চলে যাবি ।

আরও পড়ুন-হঠাৎ করেই বিজেপির হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ ছাড়লেন বিজেপি সাংসদ সৌমিত্র খাঁ। শুরু জল্পনা।

দিলীপ দার সামনে বিক্ষোভ টা হওয়া উচিত। অনেকেই অনেক কিছু জানাবে। তুই ভালো বলতেও পারিস। যে কথা আমায় বলেছিস, সে কথা দিলীপ দাকে বলবি।

আর যদি ঠিকঠাক ক্ষোভ প্রকাশ করা যায় তাহলে মোটামুটি আশা রয়েছে কিছু একটা হতে পারে।”উল্টোদিকের ব্যক্তিকে শুধুমাত্র, হ্যাঁ, আচ্ছা এইসব বলতে শোনা গিয়েছে। অভিযোগ এই অডিওতে যিনি বিক্ষোভের নির্দেশ দিচ্ছেন তিনি হুগলির বিজেপির সাংগঠনিক জেলার প্রাক্তন সভাপতি সুবীর নাগ। তিনি এই অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।

আরও পড়ুন-দলীয় কর্মীদের উপর আক্রমণ করে চন্দ্রিমা ভট্টাচার্যের প্রশংসা করায় তথাগতকে জবাব দিলীপ ঘোষের।

তিনি বলেছেন, “আমাকে কালিমালিপ্ত’ করতে এই অপপ্রচার করা হচ্ছে। সমর্থকরা তাদের অভিযোগ জানিয়েছেন। বিজেপি সংগঠন একসময় ভালো ছিল। এখন কারো উপস্থিতিতে খারাপ হয়েছে।”