নিউজ

“বাংলায় অগ্নিমিত্রার মত শিক্ষিত, ভদ্র বিধায়ক চান প্রধানমন্ত্রী”- বললেন মিঠুন চক্রবর্তী

নিজস্ব প্রতিবেদন: এবারে বিজেপির স্টার প্রচারক হিসাবে বাংলার মাটিতে বেশ কয়েক বার ছুটে এসেছেন মিঠুন চক্রবর্তী। বাংলার বিভিন্ন প্রান্তে তিনি জনসভা করেছেন রোড শোতে অংশগ্রহণ করেছেন। মিঠুনের ওপর এবারে যথেষ্ট ভরসা করছে বিজেপি শীর্ষ নেতৃত্ব। বাংলা সিনেমার চোখা চোখা ডায়লগ বলে বিজেপি কর্মী সমর্থকদের হৃদয় জিতে নিয়েছেন তিনি।

বারবার তিনি বাংলার মাটিতে জনসভায় এসে আত্মবিশ্বাসের সুরে বলেছেন এবারে বিজেপিই বাংলায় ক্ষমতায় আসতে চলেছে।সম্প্রতি অগ্নিমিত্রা পল কে উদ্ধৃত করে বেশ কিছু কথা বলেছেন মহাগুরু মিঠুন চক্রবর্তী। তিনি বলেছেন, “অগ্নিমাত্রার জনসভায় আমার আসার কথা ছিলো, কিন্তু করোনার এই বাড়বাড়ন্ত এবং কমিশনের নিষেধাজ্ঞা জারি হতেই আমি আর এখানে আসিনি। কিন্তু আমি কথা দিচ্ছি খুব শীঘ্রই আসবো।

আরও পড়ুন-“ভ্যাকসিনের আবেদন করেছি। কিন্তু এখনো হাতে পাইনি”- বললেন অরবিন্দ কেজরিওয়াল

“এছাড়াও মিঠুন চক্রবর্তী বলেছেন , “যখন আমার পরিস্থিতি খারাপ ছিল তখন বারবার অগ্নিমিত্রা আমাকে ফোন করেছে আমার স্ত্রী কে ফোন করেছে , আমাদের খোঁজখবর নিয়েছে। যে মানুষটা বাংলায় বসে শুধু মুম্বই নিবাসী দাদার খোঁজখবর নিতে পারে, সেই মানুষটা বাংলার মানুষের পরিস্থিতি সম্পর্কে সব সময় সজাগ থাকবেন। এটা অবশ্যম্ভাবী। অগ্নিমিত্রা এই ম্যাচে অবশ্যই জিতবেন, আর তিনি জিতলে আমিও আনন্দ উৎসবে শামিল‌ হবো।

অগ্নিমিত্রার নির্বাচনী কেন্দ্রে আসবো আমি। প্রধানমন্ত্রী অগ্নিমিত্রার মতোই একজন শিক্ষিত এবং ভদ্র বিধায়ক চান। অগ্নিমিত্রা বাংলাকে সোনার বাংলা গড়ে তুলতে সাহায্য করবেন। তিনি মানুষের দুঃখ দূর্দশা বোঝেন, মানুষের কাছে পৌঁছাতে জানেন। তিনি তাঁর দায়িত্ববোধ সম্বন্ধে যথেষ্ট সজাগ। বিজেপি ক্ষমতায় এলে, আগামী ৬ মাসের মধ্যে বাংলার সমস্ত জেলা হাসপাতালের জেনারেল বেড গুলিও শীততাপ নিয়ন্ত্রিত করে দেওয়া হবে। এছাড়াও কমানো হবে বিদ্যুতের বিলের অঙ্ক। বিজেপি শাসিত বাংলায় মহিলারা বিনামূল্যে সরকারি বাসে যেতে পারবেন। মহিলাদের ক্ষেত্রে কেজি থেকে পিজি পর্যন্ত শিক্ষার সমস্ত দায়ভার গ্রহণ করবে রাজ্য বিজেপি সরকার।”

Related Articles

Back to top button