নিউজপলিটিক্স

নতুন জোটের সম্ভাবনা ত্রিপুরার মাটিতে। পৌঁছালো এআইসিসি’র প্রতিনিধি দল।

নিজস্ব প্রতিবেদন: ত্রিপুরার মাটিতে নিজেদের গড় মজবুত করতে উঠে পড়ে লেগেছে তৃণমূল কংগ্রেস। ইতিমধ্যেই ত্রিপুরার মাটিতে সমীক্ষার কাজ করেছে প্রশান্ত কিশোরের আইপ্যাক। এছাড়াও তৃণমূলের তাবড় তাবড় নেতা-মন্ত্রীরা ত্রিপুরার মাটিতে উপস্থিত হয়েছেন। ত্রিপুরায় গিয়েছেন কুনাল ঘোষ।

এছাড়াও ত্রিপুরায় গিয়েছিলেন সর্বভারতীয় তৃণমূল সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় পশ্চিমবঙ্গের বাইরে ত্রিপুরা, উত্তরপ্রদেশ, কেরলে তৃণমূলের গড় মজবুত করতে কর্মসূচি শুরু করে দিয়েছেন। এবার ত্রিপুরার মাটিতে সক্রিয় হয়ে উঠেছে কংগ্রেস। তাড়াতাড়ি করে ত্রিপুরার মাটিতে এআইসিসি’র দুই তাবড় নেতারা নিজেদের বৈঠ সম্পাদন করেছেন।

আরও পড়ুন-“রাজ্য জমি দিতে পারেনি, আর কেন্দ্রকে দোষ দিচ্ছে।”- মুখ্যমন্ত্রীকে আক্রমণ করলেন দিলীপ ঘোষ।

জানা গিয়েছে এআইসিসি’র সাধারণ সম্পাদক অবিনাশ পান্ডে এবং ছত্রিশগড়ের স্বাস্থ্যমন্ত্রী টিএস সিং দেও ত্রিপুরার বুকে উপস্থিত হয়ে বৈঠক সম্পাদন করেছেন। তাঁরা ব্লক সভাপতিদের সাথে বৈঠক করেছেন। উক্ত বৈঠকে সম্ভবত জোটের প্রসঙ্গ নিয়ে আলোচনা হয়ে থাকতে পারে। তাঁরা উক্ত বৈঠকে কর্মীদের কংগ্রেস ত্যাগ করে না যাওয়ার জন্য আবেদন জানিয়েছেন।

এছাড়াও জানা গিয়েছে আগামী ডিসেম্বরে ত্রিপুরার মাটিতে পা রাখতে পারেন কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী।ত্রিপুরার মাটিতে যেমন তৃণমূলের হাওয়া উঠেছে, তেমন‌ই হাওয়া উঠেছে কংগ্রেসের‌ও। ত্রিপুরার অনেক বিজেপি এবং সিপিএমের নেতারা এবার তৃণমূলের দিকে ঝুঁকতে শুরু করে দিয়েছেন। এবার এই লক্ষ্যে ত্রিপুরার মাটিতে সক্রিয়তা দেখাতে শুরু করেছে কংগ্রেস ও। প্রশান্ত কিশোরের সাথে রাহুল গান্ধী এবং সোনিয়া গান্ধীর বৈঠক সম্পন্ন হয়েছে।

আরও পড়ুন-কৃষক আন্দোলনকে সমর্থন জানিয়ে যন্তর মন্তরে কৃষকদের পাশে উপস্থিত হচ্ছেন তৃণমূল সাংসদ দোলা সেন, প্রসূন বন্দ্যোপাধ্যায়রা

সূত্রের খবর এটাই যে খুব শীঘ্রই হয়তো কংগ্রেসে যোগদান করতে পারেন প্রশান্ত কিশোর। প্রতিটি রাজ্যেই কংগ্রেস বিজেপিকে আটকাতে শক্তিশালী জোট গঠন করার প্রক্রিয়া নিয়েছে। সম্প্রতি ত্রিপুরার মাটিতে সমীক্ষায় যাওয়া প্রশান্ত কিশোরের আইপ্যাকের ২৩ জন কর্মীদের করোনা পরীক্ষার নামে হোটেলে আটকে রেখেছিলো ত্রিপুরা পুলিশ। তখন সেই কর্মীদের ছাড়াতে আদালতে স‌ওয়াল করেছিলেন ত্রিপুরা প্রদেশ কংগ্রেসের সভাপতি পীযূষ বিশ্বাস।

এই ঘটনার পর থেকেই রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা অনুমান করছেন যে ত্রিপুরার মাটিতে তৃণমূল এবং কংগ্রেসের একটি শক্তিশালী জোট গঠনের সম্ভাবনা দৃঢ় হয়েছে । যদি এই জোট গঠিত হয়ে যায় তাহলে ত্রিপুরার মাটিতে যথেষ্ট সংকটজনক পরিস্থিতির মুখোমুখি হতে চলেছে বিপ্লব দেবের বিজেপি সরকার।

Related Articles

Back to top button