লকডাউনের আবহে নাতনির মুখে খাবার তুলে দিতে রাস্তায় বেহালা বাজাচ্ছেন বৃদ্ধ। খবর পেয়েই দেখা করে সাহায্যের আশ্বাস দিলেন রাজ চক্রবর্তী।

লকডাউনের আবহে নাতনির মুখে খাবার তুলে দিতে রাস্তায় বেহালা বাজাচ্ছেন বৃদ্ধ। খবর পেয়েই দেখা করে সাহায্যের আশ্বাস দিলেন রাজ চক্রবর্তী।

নিজস্ব প্রতিবেদন: সারা দেশজুড়ে আতঙ্ক ছড়াচ্ছে করোনা। এই ভাইরাসের কবলে পড়ে প্রাণহানি হচ্ছে অগুণতি মানুষের। পশ্চিমবঙ্গের বুকেও ভয়াবহ তান্ডব চালাচ্ছে এই ভাইরাস। পশ্চিমবঙ্গের মাটিতেও এই ভাইরাসের শিকার হয়ে ঝরে গিয়েছে বহু তরতাজা প্রাণ।

ইতিমধ্যেই পশ্চিমবঙ্গের বুকে জারি হয়েছে বিধিনিষেধ। বন্ধ হয়েছে ট্রেন বাস। এই বিধিনিষেধ জারি হতেই বেশ কিছু মানুষ পড়েছে চরম সংকটে। অনেকেরই আবার কাজ বন্ধ হয়ে গিয়েছে।

আরও পড়ুন-কলকাতা হাইকোর্টে মিঠুন মামলার শুনানি হতে চলেছে আগামী শুক্রবার

নুন আনতে পান্তা ফুরায় সংসারে পরিবারের সদস্যদের মুখে অন্ন তুলে দিতে হিমশিম খাচ্ছেন বহু জন। এই পরিস্থিতিতে অনেকেই দুঃস্থ মানুষগুলোর পাশে দাঁড়াতে এগিয়ে এসেছেন। অনেক স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন গুলো প্রতিনিয়ত খাবার বিলি করছেন অসহায় মানুষগুলোকে। নেতা মন্ত্রীরাও নিজেদের পদাধিকার বলে সচেষ্ট হয়েছেন মানুষের কল্যাণার্থে।

ঠিক এরকমই একটি মানবিক কর্মকান্ড করেছেন ব্যারাকপুরের নবনির্বাচিত তৃণমূল বিধায়ক রাজ চক্রবর্তী।করোনার ভয়াবহ আবহে বিধিনিষেধের দরুণ কাজ চলে গিয়েছে জামাইয়ের। অথচ ঘরে সদ্যোজাত নাতনি। তাই ওইটুকু মেয়ের মুখে দু মুঠো খাবার তুলে দিতে পথে নেমেছেন অশীতিপর বৃদ্ধ।

আরও পড়ুন-“মাধ্যমিকের মার্কশিটের সাথেই দেওয়া হবে অ্যাডমিট কার্ড।”- সিদ্ধান্ত মধ্যশিক্ষা পর্ষদের।

বেহালা বাজাতে পারদর্শী তিনি। কলকাতার রাস্তায় ঘুরে ঘুরে অথবা ফুটপাতে বসেই বেহালা বাজান তিনি। পথচলতি মানুষ খুশী হয়ে পাঁচ দশ টাকা দিলে সারাদিনে কুড়িয়ে বাড়িয়ে সেই টাকা গুলো রোজগার করে নাতনির মুখে অন্ন তুলে দেন বৃদ্ধ ভগবান মালি। মালদা থেকে স্ত্রীকে নিয়ে কলকাতায় সদ্যোজাত নাতনিকে দেখতে এসেছিলেন তিনি।

কিন্তু বিধিনিষেধের গেরোয় ট্রেন‌ বাস বন্ধ হ‌ওয়ায় আটকে পড়েন তিনি। ঘরে রয়েছে জামাই, মেয়ে, স্ত্রী, ছোট্ট নাতনি। জামাইয়ের কাজ বন্ধ হয়েছে। তাই পেটের তাগিদে বেহালা বাজান তিনি।

আরও পড়ুন-নারদ মামলায় হলকনামা গ্রহণ করল না হাইকোর্ট। চ্যালেঞ্জ জানিয়ে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ মুখ্যমন্ত্রী।

সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে এই খবর জানতে পারেন চক্রবর্তী। ‌ তিনি ভগবান মালির সাথে একটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার মাধ্যমে দেখা করেন। গতকাল তাঁর সাথে দেখা করে তাঁর পাশে দাঁড়ানোর প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন রাজ চক্রবর্তী। তাঁর জামাইয়ের জন্য একটা কাজ খুঁজে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন, পাশাপাশি তিনি তাঁর নাতনির জন্য প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র কিনে দেওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন।

রাজ চক্রবর্তীর এই মানবিকতার মুগ্ধ হয়েছেন ভগবান মালি।