নিউজ

“করোনার ভ্যাকসিন থেকেও কাটমানি খাচ্ছে মোদী সরকার।”- বিস্ফোরক অভিষেক।

নিজস্ব প্রতিবেদন: সমাপ্ত হয়ে গিয়েছে বাংলায় একুশের ভোট পর্ব । এবার কার হাতে ওঠে নবান্নের চাবি তা দেখা যাবে আগামী ২ রা মে’র ফলাফলে। এই ফলাফল জানিয়ে দেবে কে হতে চলেছেন বাংলার আগামী মুখ্যমন্ত্রী। এই ভোটকে ঘিরে টানা একমাসের‌ও বেশী যথেষ্ট উত্তাপ বিরাজ করছে বাংলার বুকে। এদিকে করোনার ভয়াবহ সন্ত্রাসে বিপর্যস্ত বাংলা তথা সারা ভারত। এই মহামারীর কবলে পড়ে প্রাণ গিয়েছে বহু মানুষের। এই পরিস্থিতিতে প্রথম থেকেই সরাসরি নির্বাচন কমিশন এবং কেন্দ্রীয় সরকারকে দায়ী করে আসছেন মুখ্যমন্ত্রী।

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের শেষ তিন দফার ভোট এক দফাতেই সম্পন্ন করার আর্জি জানিয়ে ছিলেন কমিশনের কাছে , কিন্তু নির্বাচন কমিশন তার এই অনুরোধ নাকচ করে দিয়েছে। এই বিষয় বারবার নির্বাচন কমিশনের বিরুদ্ধে সরব হয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। ‌ এছাড়াও মুখ্যমন্ত্রী চিঠি লিখেছিলেন যে কেন্দ্র থেকে পর্যাপ্ত পরিমাণ ভ্যাকসিন রাজ্যে পাঠানো হোক। ‌ পশ্চিমবঙ্গ সরকার ফ্রিতে সাধারণ মানুষকে ভ্যাকসিন দেবে। ‌

আরও পড়ুন-“আগামী ২ রা মে, দিদি আমাদের নবান্নে নিয়ে যাচ্ছেন।”- ভোট দিয়ে বললেন কৌশানী।

কিন্তু প্রধানমন্ত্রী দপ্তর থেকে কোনো উত্তর আসেনি বলে অভিযোগ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। এছাড়াও করোনার ভ্যাকসিনের দাম এর বিস্তর পার্থক্য নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। সিরাম ইনস্টিটিউট জানিয়েছে তাদের ভ্যাকসিনের দাম তারা রাজ্যের ক্ষেত্রে ৪০০ টাকা থেকে কমিয়ে ৩০০ টাকা করেছে।এই প্রসঙ্গে এবার নরেন্দ্র মোদীর সমালোচনায় সরব হয়েছেন তৃণমূল সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেছেন, “এক‌ দেশ , এক ভ্যাকসিনের দাম হ‌ওয়া উচিৎ।

“এছাড়াও অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের টুইট করে লিখেছেন, “পশ্চিমবঙ্গ কে বিক্রি করার জন্য ভ্যাকসিনের দাম ৪০০ থেকে কমিয়ে ৩০০ টাকা করা হয়েছে। কিন্তু কেন্দ্রকে দেওয়া হচ্ছে ১৫০ টাকায়। এই ফারাকের ব্যাখ্যা দেওয়া যাবে না।”এছাড়াও অভিষেক বলেছেন, “ভ্যাকসিন উৎপাদনকারী সংস্থা থেকে কাটমানি নিচ্ছে মোদী সরকার। রাজ্যগুলিকে লুঠ করছে এই সরকার।”

Related Articles

Back to top button