নিউজ

মানবিক মুখ শচীন তেন্ডুলকারের। করোনা মোকাবিলায় দিলেন ১ কোটি টাকা।

নিজস্ব প্রতিবেদন: সারা ভারতের মধ্যে ভয়াবহ পরিস্থিতি বিরাজ করছে। এখনো পর্যন্ত বহু মানুষ করোনার শিকার হয়ে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েছেন। এর উপরে আরো ভয়াবহ পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে অক্সিজেনের অপ্রতুলতা কে কেন্দ্র করে। দেশের বিভিন্ন রাজ্যে দেখা দিয়েছে অক্সিজেনের চরম সংকট। ‌ অক্সিজেনের অভাবে তিলে তিলে মৃত্যু ঘটেছে অসহায় রোগীদের। আমেরিকা, ফ্রান্স, সৌদি আরব, চীন, ভুটান, বাংলাদেশ প্রভৃতি দেশগুলির থেকে যথেষ্ট সাহায্য আসতে শুরু করেছে ভারতের বুকে।

আমেরিকা থেকে ভারতে আসতে চলেছে ১০০ মিলিয়ন‌ ডলারের অতি গুরুত্বপূর্ণ করোনা চিকিৎসা সামগ্রী। আমেরিকা থেকে আসছে ৪৪০ টি অক্সিজেন সিলিন্ডার, এন-৯৫ মাস্ক, র‌্যাপিড ডায়াগনোস্টিক কিট, ১০০০ অক্সিজেন সিলিন্ডার। পোর্টেবল অক্সিজেন কনসেন্ট্রেটরের এর জন্য পিএম কেয়ার্স ফান্ড থেকে বিপুল পরিমাণ টাকা অনুমোদন করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

রাশিয়া থেকে এসেছে ১৫০ টি বেডসাইড মনিটর থেকে শুরু করে ২০ টি অক্সিজেন কনসেন্ট্রেটর এবং ৭৫ টি অত্যাধুনিক ভেন্টিলেটর। দেশের মধ্যে বেশকিছু সেলিব্রিটিরাও অসহায় করোনা রোগীদের জন্য মুক্ত হস্তে দান করেছেন। অক্ষয় কুমার করোনা আক্রান্তদের চিকিৎসার জন্য দান করেছেন ১ কোটি টাকা। এছাড়া অভিনেত্রী সুস্মিতা সেন অসহায় আক্রান্তদের জন্য জোগাড় করে দিয়েছেন অক্সিজেন সিলিন্ডার। এছাড়াও ক্রিকেটার গৌতম গম্ভীর তার সমাজসেবী সংস্থাকে নিয়ে যথেষ্ট সক্রিয় ভাবে কাজ করে চলেছেন রোগীদের সেবায়।

আরও পড়ুন-কেরলে ব্যার্থ রাহুল গান্ধী। আবার সরকার গড়ার পথে বামফ্রন্ট

অভিনেতা সলমন খান শিবসেনার যুব সংগঠনের সাথে গাঁটছড়া বেঁধে ৫০০০ করোনা যোদ্ধাদের যেমন, নার্স, অন্যান্য স্বাস্থ্যকর্মী, ডাক্তারদের খাবারের ব্যবস্থা করেছেন সলমন।এবার মানবিক মুখ দেখালেন শচীন তেন্ডুলকার। অক্সিজেন কনসেন্ট্রেটর কেনার জন্য দান করলেন ১ কোটি টাকা। সম্প্রতি তিনিও করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন। ২১ দিন টানা আইসোলেশনে ছিলেন তিনি।

‘মিশন অক্সিজেন’ নামক একটি তহবিলে ১ কোটি টাকা দান করেছেন শচীন। ২৫০ টির‌ও বেশী সচ্ছল উদ্যোগপতি মিলে এই মিশনের সূচনা করেছেন। তাদের উদ্দেশ্য হলো অর্থ জোগাড় করে দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে অক্সিজেন কনসেন্ট্রেটরের ব্যবস্থা করে দেওয়া। তাঁদের তহবিলেই এই অর্থ প্রদান করেছেন শচীন। সারাদেশের মানুষ মাস্টার ব্লাস্টারের এই পদক্ষেপকে কুর্নিশ করেছেন।

Related Articles

Back to top button