নিউজদেশপলিটিক্সরাজ্য

আদালতে শুরু নারদা মামলার শুনানি। “সিবিআইয়ের কাজে বাধা দেওয়া হয়েছে।”- মন্তব্য সলিসিটর জেনারেলের।

নিজস্ব প্রতিবেদন: গত ১৭ ই মে নারদা কান্ডে সিবিআইয়ের হাতে গ্রেফতার হয়েছেন তৃণমূলের অন্যতম প্রভাবশালী মন্ত্রী মদন মিত্র, সুব্রত মুখোপাধ্যায় এবং ফিরহাদ হাকিম। এছাড়াও প্রাক্তন মেয়র তথা প্রাক্তন তৃণমূল মন্ত্রী শোভন চট্টোপাধ্যায় কেও গ্রেফতার করেছে সিবিআই। তাদের সিবিআই বিশেষ আদালত জামিন দিলেও , হাইকোর্ট তাঁদের জামিনে স্থগিতাদেশ দেয়। প্রেসিডেন্সি জেলে পাঠানো হয় এই নেতাদের।

আজ কলকাতা হাইকোর্টে এই মামলার পরবর্তী শুনানি শুরু হয়ে গিয়েছে। গতকাল হাইকোর্টের রায় পুনর্বিবেচনার আর্জি জানিয়েছিলেন উক্ত চার নেতা। কিন্তু হাইকোর্ট তাঁদের পুনর্বিবেচনার আর্জির পরিপ্রেক্ষিতে জানায় যে আজ বুধবার এই দুটো মামলার‌ই শুনানি হবে। সেইমতো হাইকোর্টের জামিনের স্থগিতাদেশের পুনর্বিবেচনার আর্জির শুনানি শুরু হয়ে গিয়েছে এবং এই মামলার স্থানান্তর চেয়ে সিবিআই যে আবেদন করেছে , সেই বিষয়ের‌ও শুনানি শুরু হয়েছে আজ।

আরও পড়ুন-“গভীর ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে।”- হাসপাতাল থেকে বললেন মদন মিত্র।

শুনানির শুরুতেই প্রভাবশালী চার মন্ত্রীর হয়ে স‌ওয়াল করতে শুরু করেছেন রাজ্য সরকার পক্ষের আইনজীবী কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়, অভিষেক মনু সিংভী প্রমুখ। এদিকে পাবলিক সলিসিটর জেনারেল তুষার মেহতা বলেছেন, “গত সোমবার সিবিআই কর্মীদের হুমকি দেওয়া হয়েছে। রাজ্যের আইনমন্ত্রী নিজে বহু মানুষকে সাথে নিয়ে নিজাম প্যালেসে উপস্থিত হয়েছিলেন, এতে বিচারকের উপর চাপ সৃষ্টি হয়েছে, অভিযুক্তদের পক্ষ নিয়ে সিবিআই অফিসে দীর্ঘক্ষণ বসেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী।

আরও পড়ুন-আদালতের শুনানির আগে কাতর আবেদন জানালেন মদন মিত্রের স্ত্রী অর্চনা মিত্র।

নিঃশর্তভাবে অভিযুক্তদের মুক্তির দাবি করা হয়েছে। সিবিআইয়ের আইনজীবীদের বাধা প্রদান করা হয়েছে। পরিকল্পনামাফিক এই গন্ডগোল করা হয়েছে। ইচ্ছাকৃত ভাবে আইনশৃঙ্খলাকে ওইদিন বিধ্বস্ত করা হয়েছে। দেশের ইতিহাসে এরকম কখনো হয়নি। আগামীদিনে যদি কাউকে গ্রেফতার করা হয় , তাহলে এরকমই পদ্ধতির প্রয়োগ করা হতে পারে। তাই এঁদের জামিন দেওয়া যুক্তিযুক্ত হবে না।”

Related Articles

Back to top button