“সরকার ব্লু টিকের লড়াইয়ে ব্যস্ত। আপনারা যদি প্রাণে বাঁচতে চান তাহলে আত্মনির্ভরশীল হোন।”- কটাক্ষ করলেন রাহুল গান্ধী।

“সরকার ব্লু টিকের লড়াইয়ে ব্যস্ত। আপনারা যদি প্রাণে বাঁচতে চান তাহলে আত্মনির্ভরশীল হোন।”- কটাক্ষ করলেন রাহুল গান্ধী।

নিজস্ব প্রতিবেদন: দেশের উপরাষ্ট্রপতি ভেঙ্কাইয়া নাইডুর ব্যক্তিগত টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে ব্লু টিক সরিয়ে নিয়েছে টুইটার অর্থাৎ তার অ্যাকাউন্ট ভেরিফাইড নয়।জানা গেছে গত ৬ মাস ধরে টুইটারে সক্রিয় নেই ভেঙ্কাইয়া নাইডু। তবে এটি তার ব্যক্তিগত অ্যাকাউন্ট । তার অফিশিয়াল যে টুইটার পেজ রয়েছে তাতে ব্লু টিক দেওয়া রয়েছে।

টুইটার জানিয়েছে যে সমস্ত ব্যক্তিরা যথেষ্ট প্রসিদ্ধ এবং সক্রিয় ভাবে তারা তাদের টুইটার অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করেন সেক্ষেত্রে তাদের এই টুইটার অ্যাকাউন্ট ভেরিফাইড বলে ব্লু টিক দেয় টুইটার। কিন্তু দীর্ঘদিন অ্যাকাউন্ট পরিচালনা না করলে এই ব্লু টিক সরিয়ে নেওয়া হয়। তখন তাদের এই অ্যাকাউন্ট আর ভেরিফায়েড থাকে না । তাই এক্ষেত্রে বলা হচ্ছে গত ছয় মাস যাবৎ উপরাষ্ট্রপতি ভেঙ্কাইয়া নাইডু তাঁর এই অ্যাকাউন্ট থেকে কোনোরকম টুইট করেননি।

আরও পড়ুন-“বামেদের সাথে জোট করায় মানুষ বিশ্বাস করেনি।”- সোনিয়া গান্ধীকে চিঠি দিলেন কংগ্রেস নেতা শংকর মালাকার।

তাই টুইটার তাঁর অ্যাকাউন্ট নন ভেরিফায়েড করে দিয়েছে। এছাড়াও আর‌এস‌এসের এক শীর্ষনেতার টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকেও ব্লু টিক সরিয়ে নিয়েছে টুইটার। আর এই ঘটনাকে উদ্ধৃত করে কেন্দ্রীয় সরকারের প্রতি আবার কটাক্ষের তীর ছুঁড়ে দিয়েছেন কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী।রাহুল গান্ধী টুইট করে লিখেছেন, “ব্লু টিক এর জন্য কেন্দ্রীয় সরকার লড়াই করে চলেছে।

আরও পড়ুন-“এক বছরে ভ্যাকসিন বানিয়ে আত্মনির্ভরতার পরিচয় দিয়েছে ভারত।”- বললেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

এই মুহূর্তে যদি আপনার করোনা টীকার প্রয়োজন পড়ে তাহলে সরকারের মুখাপেক্ষী না থেকে আত্মনির্ভর হয়ে উঠুন।” সরকার ব্লু টিকের জন্য লড়াইয়ে ব্যস্ত হয়ে রয়েছে। তাই যদি সমগ্র দেশবাসী প্রাণে বাঁচতে চান, তাহলে অবিলম্বে আত্মনির্ভর হয়ে উঠুন।”