খুশির খবর- ভারতের সীমান্ত রক্ষায় নিয়োজিত হতে চলেছে বিশেষ হাতিয়ার, চাপে চীন

সীমান্তে রয়েছে ভারতের দুই শত্রুদেশ চিন এবং পাকিস্তান। বারবার‌ই আগ্রাসী মনোভাবের হদিশ আসছে তাদের দিক থেকে। তাই বছরের পর বছর ভারত নিজের অ-স্ত্র সম্ভারকে করেছে আরো উন্নত এবং শক্তিশালী। ভারতের সেনাবাহিনী বর্তমানে বিশ্বের চতুর্থ শক্তিশালী সেনাবাহিনী। ভারতের সাথে বিশ্বের তাবড় তাবড় শক্তিশালী দেশগুলোর সুসম্পর্ক রয়েছে।

যেমন, আমেরিকা, রাশিয়া, জার্মানি, জাপান, ইজরায়েল প্রভৃতি। চিন-ভারত সীমান্তে যু-দ্ধ পরিস্থিতিতে ভারতের পাশে দাঁড়িয়েছে আমেরিকা, রাশিয়া, ইজরায়েল। যু-দ্ধকালীন পরিস্থিতিতে ভারতকে অত্যাধুনিক ‘এক্সক্যালিবার’ দেওয়ার জন্য তৈরি আমেরিকা। এই অ-স্ত্রের গোলার পাল্লা হল ৪০ কিমি। এই গোলা ভারতীয় সেনাবাহিনীতে ব্যবহৃত M77 ULTRA LIGHT হাউৎজার সহ বিভিন্ন কামানের সাথে অনায়াসে ব্যবহার করা যাবে।

আরও পড়ুন – অবশেষে মাধ্যমিক, উচ্চমাধ্যমিকের রেজাল্টের দিন ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী

এর আগেও ভারতকে আটটি অ্যাপাচে হেলিকপ্টার বিক্রি করেছিলো আমেরিকা। এই AH-64E অ্যাপাচে কপ্টার যথেষ্ট শক্তিশালী অ্যাটাক হেলিকপ্টার। বিশ্বের এক নম্বর অ্যাটাক কপ্টার এটি। একটা ফাইটার প্লেনের মতোই এটাও অনেক কিছু অসাধ্য সাধন করতে পারে। এছাড়াও ভারতের কাছে রয়েছে চিনুক হেলিকপ্টার। এটি মূলত মালবাহী ও সেনাদের, রসদ নিয়ে যাওয়ার জন্য ব্যবহৃত হয়।

আরও পড়ুন –ফের ভারী বৃষ্টি চলবে এই চার জেলায়, হতে পারে বন্যা! সতর্ক করে জানিয়ে দিলো মৌসম ভবন

অনেক দূর্গম এলাকায় পৌঁছে যেতে পারে এই চিনুক কপ্টার। আকারেও এটি বেশ বড়ো। অনেকজন সেনা পরিবহন করতে পারে এটি। ভারতকে আরো ৩৭ টি অ্যাডভান্সড্ কপ্টার পাঠাচ্ছে আমেরিকা। এর মধ্যে ২২ টি হল অ্যাপাচে এবং ১৫ টি চিনুক। এবার ভারতের হাতে আসতে চলেছে সীমান্ত রক্ষায় আরো নতুন ধরণের উন্নত হাতিয়ার। জানা গিয়েছে আমেরিকার থেকে এক উন্নত মানের ড্রোন কিনতে চলেছে ভারত।

আরও পড়ুন –ধ’র্ষণের শি’কার টলিউডের জনপ্রিয় অভিনেত্রী, পুলিশের জালে অভিযুক্ত!

জানা গিয়েছে এই শক্তিশালী ড্রোন রাডারের নজর এড়িয়ে ৫০ হাজার ফুট উঁচুতে উড়তে পারে। এর গতিবেগ হতে পারে ঘন্টায় সর্বোচ্চ ২৩০ কিলোমিটার। ৪৮০০ কেজি বিস্ফোরক এবং অ-স্ত্রশ-স্ত্র বহন করতে সক্ষম এই ড্রোন। জানা গিয়েছে এই ড্রোন ব্যবহার করেই ইরানি জেনারেল কাশেম সুলেমানিকে হ-ত্যা করেছে আমেরিকা। এই ড্রোনটির নাম হল MQ-9 রিপার।

সীমান্ত রক্ষার পাশাপাশি এই ড্রোন আক্রমণ শানাতেও পটু। সীমান্তের বহু বি-প-দসং-কু-ল জায়গায় যেখানে বায়ুসেনার বিমান পৌঁছাতে সক্ষম হয়না, সেখানে অনায়াসে পৌঁছে যাবে এই ড্রোন।

এখানে আপনার মতামত জানান