নিউজঅফবিটকলকাতা

তৃতীয় ঢেউয়ের আগমনের আশঙ্কায় কলকাতায় দূর্গাপূজার প্রস্তুতিতে ভাটা

নিজস্ব প্রতিবেদন: সারা দেশব্যাপী চেনা স্বাভাবিক চিত্রটিকে এক লহমায় বদলে দিয়েছে করোনার ঢেউ। টানা এক বছরের‌ও বেশী সময় ধরে সারা ভারত তথা পৃথিবীর বুকে ভয়াবহ সন্ত্রাস চালাচ্ছে এই মহামারী। ভারতে বহু মানুষের প্রাণ কেড়ে নিয়েছে এই মহামারি। এখনো পর্যন্ত সারা দেশে করোনায় মোট আক্রান্ত হয়েছেন ৩ কোটি ৯ লক্ষ ৪৬ হাজার ৭৪ জন।

মৃত্যু হয়েছে ৪ লক্ষ ১১ হাজার ৪৩৯ জনের। সুস্থ্য হয়েছেন ৩ কোটি ১ লক্ষ ৪ হাজার ৭২০ জন।সারা দেশে করোনার এই দ্বিতীয় ঢেউ যথেষ্ট অন্ধকার পরিস্থিতির সূচনা করেছে। বেশ কিছু রাজ্যে এখনও নানান বিধিনিষেধ জারি রয়েছে। এই আবহের মধ্যে কলকাতার দূর্গাপূজায় এবারে বাঙালি মেতে উঠবেন কিভাবে সেই ব্যাপারে যথেষ্ট সংশয়ের উদ্রেক ঘটেছে।

আরও পড়ুন-গাড়ির দাম প্রায় ১৫ হাজার টাকা বৃদ্ধি করেছে মারুতি সুজুকি।

গত বছর কড়া কোভিডি বিধি মেনে সম্পন্ন হয়েছে মায়ের আরাধনা। এবারেও ১৪ দফা গাইডলাইন প্রকাশ করেছে ফোরাম ফর দূর্গোৎসব। এই গাইডলাইন রাজ্য সরকারের কাছেও পাঠিয়েছে ফোরাম। রাজ্যের পুজো কমিটি গুলি এবং রাজ্য সরকার এই গাইডলাইনে সহমত হলেই পুজোর প্রস্তুতি শুরু করে দেবে ফোরাম ফর দুর্গোৎসব ।

কলকাতার প্রায় ৪৫০ টি পূজা কমিটি এই ফোরামের সদস্য হিসাবে অন্তর্ভুক্ত রয়েছে। কলকাতায় এই ফোরাম ফর দুর্গোৎসব একটি ভ্যাকসিন ক্যাম্পের আয়োজন করেছে যেখানে পূজার সাথে জড়িত সমস্ত সদস্যদের ভ্যাকসিন দেওয়া হবে।কিন্তু কলকাতায় বড়ো বড়ো পূজা কমিটি গুলি এবারে তৃতীয় ঢেউয়ের আগমনের আশঙ্কায় আগে থেকেই প্রস্তুতি নেওয়ার ক্ষেত্রে দোনামোনা করছে।এর ফলে দেখা গিয়েছে কোন পুজো কমিটির এখনো পর্যন্ত বাজেট নির্দিষ্ট হয়নি বা কোন পুজো কমিটি এখনো প্রতিমার অথবা ঢাকের বায়নাই দেয়নি।

আরও পড়ুন-দুঃসংবাদ ভ্রমণ প্রেমীদের জন্য। এবার দীঘায় ঘুরতে হলে মানতে হবে নতুন নির্দেশিকা।

আবার শহরের বেশীরভাগ পূজা কমিটি গুলি এবারে যেভাবেই হোক ছোটো করে পূজা সম্পন্ন করার পক্ষপাতী। সারা শহর জুড়ে পূজার প্রস্তুতির সেই চেনা চিত্রটি এবারেও মলিন। শহরে এই পূজা উপলক্ষে কোটি কোটি টাকার ব্যবসা হয়। কিন্তু এবাবে মন্ডপ শিল্পী থেকে শুরু করে প্রতিমা শিল্পী বা দূর্গাপূজাকে কেন্দ্র করে অর্থনীতির সাথে জড়িত বহু মানুষ সম্পূর্ণ আশাহত হয়েছেন।

আরও পড়ুন-ভ্যাপসা গরমের মধ্যেই বৃষ্টি হতে চলেছে সারা রাজ্য জুড়ে। পূর্বাভাস দিলো আবহাওয়া দপ্তর।

চিকিৎসকরা বলছেন যে, সংক্রমণ কম হলেও নির্মূল হয়ে যায়নি। তাই এই মূহুর্তে সবথেকে বেশী সাবধান থাকা উচিৎ, তাহলে সমাজ তৃতীয় ঢেউয়ের অভিঘাত অনেকটাই রোধ করতে সক্ষম হবে।শহরের অন্যতম পুজো কমিটি দেশপ্রিয় পার্কের সভাপতি সুদীপ্ত কুমার মন্তব্য করেছেন, “আমাদের মন্ডপ সাজাতে অনেক টাকার বাজেট দাঁড়িয়ে যায়। এই আবহের মধ্যে আমরা যতটা পারি বাজেট নিম্নগামী করার চেষ্টা করছি।

যদি তার মধ্যেই তৃতীয় ঢেউয়ের আগমন ঘটে তাহলে ছোট করে পূজো সেরে নেওয়া যাবে।”

Related Articles

Back to top button