নির্বাচন কমিশন জানিয়ে দিল আগামী ১৩ ই মে হচ্ছে না মুর্শিদাবাদের দুই কেন্দ্রের ভোটগ্রহণ। নতুন তারিখ ঘোষণা করল কমিশন।

নির্বাচন কমিশন জানিয়ে দিল আগামী ১৩ ই মে হচ্ছে না মুর্শিদাবাদের দুই কেন্দ্রের ভোটগ্রহণ। নতুন তারিখ ঘোষণা করল কমিশন।

নিজস্ব প্রতিবেদন: বাংলা দখলের জন্য সম্মুখ সমরে নেমেছে তৃণমূল বিজেপি। শক্তি সঞ্চয় করে একই যুদ্ধে শামিল হয়েছে বাম সংযুক্ত মোর্চা‌ও। একুশের ভোটে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই চলছে তিনটি দলের মধ্যে। কে ছিনিয়ে নেবে বাংলার সিংহাসন , তা দেখা এখন শুধুমাত্র সময়ের অপেক্ষা। তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তাঁর পায়ের চোট অগ্রাহ্য করেই একমাসের‌ও বেশী সময় ধরে বাংলার একপ্রান্ত থেকে আরেক প্রান্তে ছুটে বেড়াচ্ছেন।

যে কোনোভাবেই তিনি বাংলার মাটিতে তৃণমূলের অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখতে বদ্ধপরিকর। নির্বাচন কমিশন বাংলায় ভোটের আবহে শান্তি শৃঙ্খলা বজায় রাখতে বদ্ধপরিকর।এদিকে মুর্শিদাবাদের সামশেরগঞ্জ কংগ্রেস প্রার্থী রেজাউল হক করোনায় আক্রান্ত হয়ে প্রয়াত হয়েছিলেন। অপর আরেকটি কেন্দ্র জঙ্গিপুরে পরণায় আক্রান্ত হয়ে মারা গিয়েছেন আরএসপি প্রার্থী প্রদীপ নন্দী ।

আরও পড়ুন-তৃণমূলের তারকা প্রার্থী কৌশানী কে ঘিরে জয় শ্রীরাম ধ্বনি বিজেপি কর্মী সমর্থকদের

এরপর নির্বাচন কমিশন এই দুই প্রার্থীর মৃত্যুতে ২৬ শে এপ্রিলের বদলে ১৩ ই মে ওই দুই কেন্দ্রে ভোট ঘোষণা করে। কিন্তু আগামী ১৩ ই মে ঈদ থাকার কারণে নির্বাচন কমিশনের নির্ঘণ্ট ও পিছিয়ে নেওয়ার জন্য স্থানীয় সংখ্যালঘু সম্প্রদায় ব্যাপকভাবে বিক্ষোভ দেখাতে থাকে। ‌ এছাড়াও ইমাম অ্যাসোসিয়েশন থেকে শুরু করে আব্বাস সিদ্দিকীও ভোটের দিন পিছিয়ে নেওয়ার জন্য নির্বাচন কমিশনের কাছে অনুরোধ জানান।সম্মিলিত প্রতিবাদে পিছু হটে নির্বাচন কমিশন। ‌

কমিশন জানিয়েছে আগামী ১৩ ই এপ্রিল মুর্শিদাবাদের ওই দুই কেন্দ্রে ভোট হবে না তার পরিবর্তে সামশেরগঞ্জ এবং জঙ্গিপুর কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ হবে আগামী ১৬ ই মে। এর ফলে অনেকটাই স্বস্তিতে পড়েছেন সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মানুষজন।