নিউজপলিটিক্সরাজ্য

“মুখ্যমন্ত্রী নিজে মুকুল রায়কে জয়েন করিয়েছেন।”- মুখ্যমন্ত্রী কে কটাক্ষ দিলীপ ঘোষের।

নিজস্ব প্রতিবেদন: পাবলিক অ্যাকাউন্টস কমিটির চেয়ারম্যান নির্বাচন করাকে ঘিরে যথেষ্ট তরজার সৃষ্টি হয়েছে বিজেপি এবং তৃণমূলের মধ্যে। বিজেপি চাইছে এই চেয়ারম্যান পদটি তাদের দখলে রাখতে আবার শাসকদল চাইছে মুকুল রায়কে এই চেয়ারম্যান পদে আসীন করা হোক। এই নিয়ে যথেষ্ট উত্তাপ ছড়িয়েছে বঙ্গ রাজনীতিতে। এই পদে অর্থনীতিবিদ অশোক লাহিড়ীকে বসানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছিলো বিজেপি।

কিন্তু তৃণমূল এখন চাইছে এই চেয়ারম্যান পদটি তাদের দখলেই থাকুক। তাই এবার তারা নাকি মুকুল রায়কে এই পদে বসানোর জন্য ভাবনা চিন্তা শুরু করেছে। এর ফলে আবার তৃণমূল-বিজেপি তরজা সৃষ্টি হয়েছে রাজ্য রাজনীতিতে। এই আবহে গত মঙ্গলবার বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী বরাদ্দ ১০ টি কমিটির চেয়ারম্যানের নামের তালিকা বিধানসভার স্পিকার বিমান বন্দ্যোপাধ্যায় এর কাছে জমা দিয়েছেন।

আরও পড়ুন-সংঘ পরিবারের কট্টর কটাক্ষের মুখে শুভেন্দু অধিকারী এবং অর্জুন সিং রা

এদিকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন, “মুকুল রায় মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। তিনি বিজেপি পার্টির মেম্বার রয়েছেন এখনো। ‌ তাছাড়া কালিম্পং থেকে মুকুল রায় কে বিনয় তামাংদের দল সমর্থন জুগিয়েছে। ‌ আমরাও তাঁকে সমর্থন দেবো।

এখনো খাতায়-কলমে তিনি কৃষ্ণনগর উত্তরের বিজেপি বিধায়ক পদে রয়েছেন। বিধায়ক পদ থেকে তিনি এখনো ইস্তফা দেন নি। ‌ স্পিকার সিদ্ধান্ত নেবেন। ‌ যদি ভোটাভুটি হয় তাহলে আমরাই জিতবো।

আরও পড়ুন-বাজেট অধিবেশনের ভাষণ চূড়ান্ত বলে জানাল রাজ্য। এদিকে বিবেচনার আশ্বাস দিয়ে ধোঁয়াশা বৃদ্ধি করলেন রাজ্যপাল।

কার কত শক্তি তারা দেখে নিন। ‌ আমরা মানুষের ভোটে জিতে এখানে এসেছি।”এই প্রসঙ্গে বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেছেন, “মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নিজেই মুকুল রায়কে তৃণমূলে জয়েন করিয়েছেন। এখন তিনি তৃণমূল হয়ে গিয়েছেন।

আরও পড়ুন-“জল পড়ে পাতা নড়ে, পাগলা হাতির মাথা নাড়ে‌”- আবার রাজ্যপালকে কটাক্ষ করলেন মদন মিত্র

এখন আবার মুকুল রায়কে তিনি বিজেপির লোক বলছেন। সবকিছু আইন মেনে করা উচিৎ। এখন তিনি এই পিএসি চেয়ারম্যান বিরোধীদের দিতে চাইছেন না। সমাজের গণতান্ত্রিক ব্যবস্থার কিছু রীতি এবং পরম্পরা নিয়ে চলতে হয়।

উনারা এখন কোনো রীতিনীতি বা সংবিধান মানছেন না। গায়ের জোরে এখন তিনি যা ইচ্ছা করছেন।”

Related Articles

Back to top button