নিউজটেক নিউজদেশ

বাইক চালকদের জন্য এক নতুন নির্দেশিকা নিয়ে হাজির হল কেন্দ্রীয় সরকার।

নিজস্ব প্রতিবেদন: ভারতে বাইক চালকদের জন্য প্রথম থেকেই বেশ কিছু আইন-কানুন রয়েছে। ‌ তবুও বর্তমান যুব প্রজন্মের মধ্যে দেখা যাচ্ছে তারা অবিবেচকের মতো মোটরবাইক যথেষ্ট লাগামছাড়া স্পীডে চালিয়ে দুর্ঘটনার সম্মুখীন হচ্ছে। ‌ দুর্ঘটনা কমানোর জন্য কেন্দ্রীয় সরকার প্রথম থেকেই নানা নির্দেশিকা জারি করেছে। ‌ কিন্তু অনেকেই কেন্দ্রের এই নির্দেশিকাকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে বারবার আইন ভেঙে চলেছে।

বিভিন্ন রাজ্যে রাজ্যে কড়া ট্রাফিক আইন বলবৎ রয়েছে। কিন্তু গতির নেশায় বর্তমান তরুণ প্রজন্ম এই সমস্ত আইন গুলিকে কিছুতেই তোয়াক্কা করছে না । যার ফলে বিভিন্ন জায়গায় ভয়াবহ দুর্ঘটনার ঘটনা ঘটছে। গতির নেশায় নিজেদের জীবনকে এক মুহূর্তের মধ্যে নিঃশেষ করে দিচ্ছে তরুণ সমাজ ।

আরও পড়ুন-স্কুল, কলেজ খোলার দিনক্ষণ ঘোষণা করে দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

তাই ট্রাফিক আইন মেনে চলা প্রত্যেকটি মানুষের কর্তব্য। ট্রাফিক আইন মেনে চললে নিজের জীবনের পাশাপাশি আরো অন্যান্য মানুষের জীবন গুলিও সুরক্ষিত থাকবে ।এবার বাইক চালকদের জন্য এক নতুন নির্দেশিকা জারি করেছে কেন্দ্রীয় সরকার। বাইক চালক এর পিছনের সিটে অর্থাৎ পিলিয়ন রাইডার এর জন্য একটি নতুন নির্দেশিকায় বলা হয়েছে যে,পিছনের সীটে যিনি বসবেন তার জন্য বাইকের পিছনে হ্যান্ড হোল্ড থাকতে হবে।

আরও পড়ুন-আবার তাণ্ডব পাকিস্তানের হিন্দু মন্দিরে। পাকিস্তানকে কড়া বার্তা ভারতের।

এছাড়াও বাইকের পিছনে বসা ব্যক্তির জন্য পা’দানির ব্যবস্থা রাখতে হবে ।সর্বোচ্চ ৩.৫ টন ওজনের গাড়িতে টায়ার প্রেসার মনিটরিং সিস্টেম বাধ্যতামূলক ভাবে রাখতে হবে।এছাড়াও কেন্দ্রীয় সরকার নির্দেশিকা দিয়েছে যে বাইকের কন্টেনার এরকমভাবে লাগাতে হবে যার দৈর্ঘ্য হতে হবে ৫৫০ মিলিমিটার, প্রস্থ হতে হবে ৫১০ মিলিমিটার এবং উচ্চতা হতে হবে ৫০০ মিলিমিটারের মধ্যে।প্রতিটি ভারতীয় নাগরিককে এই ট্রাফিক আইন মেনে চলার জন্য পরামর্শ দিয়েছে কেন্দ্রীয় ভেহিকেল দপ্তর।

একমাত্র নাগরিকদের সচেতনতাই পথ দুর্ঘটনাকে কমাতে পারে।

Related Articles

Back to top button