“সময় মতো টীকা দেয়নি কেন্দ্র। মোদীর জন্যেই আজ করোনার দ্বিতীয় ঢেউ আছড়ে পড়েছে।”- প্রধানমন্ত্রীকে আক্রমণ মমতার

“সময় মতো টীকা দেয়নি কেন্দ্র। মোদীর জন্যেই আজ করোনার দ্বিতীয় ঢেউ আছড়ে পড়েছে।”- প্রধানমন্ত্রীকে আক্রমণ মমতার

নিজস্ব প্রতিবেদন: সারাদেশে আবার সন্ত্রাসের জাল বিস্তার করতে শুরু করেছে করোনা ভাইরাস । দ্বিতীয় পর্যায়ের ঢেউ আছড়ে পড়েছে ভারতের বুকে । মহারাষ্ট্রের অবস্থা সবথেকে খারাপ, এছাড়াও পশ্চিমবঙ্গ সহ ভারতের বৃহৎ কিছু রাজ্যে চোখ রাঙাচ্ছে করোনা। দিল্লি সরকার নাইট কার্ফু জারি করেছে , মহারাষ্ট্রে আগামী ১৫ দিনের জন্য শুরু হয়ে গিয়েছে লকডাউন।

সারা ভারতের মধ্যে এখনো পর্যন্ত করোনায় মোট আক্রান্ত হয়েছেন ১ কোটি ৩৮ লক্ষ ৭৩ হাজার ৮২৫ জন। মৃত্যু হয়েছে ১ লক্ষ ৭২ হাজার ১১৫ জনের। সুস্থ্য হয়েছেন ১ কোটি ২৩ লক্ষ ৩৬ হাজার ৩৬ জনের।দেশব্যাপী ভ্যাক্সিন দেওয়া চালু হয়েছে। কোভ্যাক্সিন এবং কোভিশিল্ড টীকা দেওয়া চালু রয়েছে। এছাড়াও রাশিয়ার তৈরি ভ্যাকসিন‌ও খুব শীঘ্রই আসতে চলেছে ভারতের বুকে। পশ্চিমবঙ্গের বুকেও দাপিয়ে সন্ত্রাস চালাচ্ছে করোনাভাইরাস।

আরও পড়ুন-“সময়মতো টিকা দিলে এত হারে কোভিড ছড়িয়ে পড়তো না”- কেন্দ্রকে বিঁধলেন মুখ্যমন্ত্রী

এই পরিস্থিতিতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে দায়ী করে আক্রমণ করেছেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেছেন,”আমি তিনমাস আগে নরেন্দ্র মোদী কে চিঠি লিখেছিলাম এবং আমি মিটিংয়েও বলেছিলাম যে আমি সর্বসাধারণকে বিনা পয়সায় ইঞ্জেকশন দেবো, আপনি ইঞ্জেকশনটা পৌঁছে দিন। তার কারণ এটা কেন্দ্রীয় সরকারের পারমিশন ছাড়া রাজ্য সরকার কিনতে পারবে না। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী দিলেন না টীকা।

আমি টাকা নিয়ে তৈরি ছিলাম , কিন্তু প্রধানমন্ত্রী টীকা পাঠালেন না, তাই আজ এর ফল ভোগ করতে হচ্ছে অসহায় নিরীহ মানুষগুলিকে।প্রধানমন্ত্রী যদি সময় মতো সমস্ত টীকা দিয়ে দিতেন তাহলে এত হারে কোভিড হত না। বিজেপি বাইরে থেকে গাদা লোক এনেছে, তারা এখানে করোনা ছড়াচ্ছে। আগে কোভিডের সময় বিজেপির একটা নেতাও বাংলায় আসেনি, আর এখন ভোটের সময় বহিরাগতদের নিয়ে এসে বলছে ভোট দাও।”