নিউজপলিটিক্স

দেশে গরীবদের সংখ্যা সম্পর্কে কোনো তথ্য‌ই নেই কেন্দ্রের কাছে।

নিজস্ব প্রতিবেদন: প্রধানমন্ত্রী বারবার বলেছেন যে দেশের গরীবদের সমস্ত কিছুতে অগ্রাধিকার দেওয়া হবে। কিন্তু সংসদের অর্থমন্ত্রক জানিয়েছে যে এই ভয়াবহ পরিস্থিতিতে সারা দেশের মধ্যে গরিবদের সংখ্যা কত রয়েছে সেই বিষয়ে কেন্দ্রীয় সরকারের কাছে কোন রকম তথ্য নেই।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বারবার ব্যক্ত করেছেন যে, করোনা সংকট মোকাবিলায় কেন্দ্রের অগ্রাধিকার হলো গরিবরা। প্রধানমন্ত্রী রোজগার প্রকল্প থেকে শুরু করে নানান জনকল্যাণমূলক যোজনায় গরীবরাই অগ্রাধিকার পাবে। কিন্তু কার্যত দেখা গিয়েছে যে সারাদেশে গরিবদের সংখ্যা জানেনা কেন্দ্রীয় সরকার। এই বিষয়টি অত্যন্ত চাঞ্চল্যকর পরিস্থিতির সৃষ্টি করেছে।

যেমন করোনার ভয়াবহ পরিস্থিতিতে কতজন পরিযায়ী শ্রমিক বাড়ি ফিরতে গিয়ে প্রাণ হারিয়েছিল সেই সমস্ত তথ্য ছিল না কেন্দ্রীয় সরকারের কাছে। এছাড়াও অক্সিজেনের অভাবে সারা দেশের মধ্যে কতজন মানুষ অকালে প্রাণ হারিয়েছেন সেই সমস্ত তথ্য জানাতে পারেনি কেন্দ্রীয় সরকার। এদিকে প্রধানমন্ত্রী বারবার বলছেন যে কেন্দ্রীয় সরকার গরিবদের কল্যাণার্থে কাজ করে চলেছে।

আরও পড়ুন –স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে তেরঙা আলোকসজ্জায় সুশোভিত হচ্ছে কলকাতা হাইকোর্ট।

এই প্রসঙ্গে অর্থমন্ত্রক জানিয়েছে, “গরিবদের সংখ্যার সরকারি হিসেব পারিবারিক খরচের বড় মাপের সমীক্ষার ওপর নির্ভর করছে। গত ২০১২ সালের পর এই সমীক্ষার রিপোর্ট আসেনি। যার ফলে এখনো পর্যন্ত প্রয়োজনীয় তথ্য পাওয়া যায়নি।”

কিন্তু এদিকে দেশে ধনকুবেরের সংখ্যা কত রয়েছে সেসব অনায়াসেই তথ্য পেয়ে গিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। এই বিষয়ে কংগ্রেস নেতারা বলেছেন, “প্রধানমন্ত্রী বারবার গরিবদের প্রসঙ্গ তুললেও দেশের মধ্যে বেশ কয়েকজন শিল্পপতিকে তিনি অগ্রাধিকার দিয়ে চলছেন সেটা পরিস্থিতি বিশ্লেষণ করলেই বোঝা যায়।”

কিন্তু কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী পাল্টা জানিয়েছে যে, পরিবারের সংখ্যা হয়তো কেন্দ্রীয় সরকারের জানা নেই কিন্তু প্রধানমন্ত্রী অন্ন যোজনার পরিষেবা থেকে একটাও গরীব মানুষ বঞ্চিত হননি। আয়কর রিটার্নের মাধ্যমে দেশে ধনীদের একটা সুস্পষ্ট তালিকা পাওয়া যায়। কিন্তু এটা গরীবদের ক্ষেত্রে হয়না।

আরও পড়ুন –সোমবার থেকে নতুন নিয়মে টীকাকরণ কলকাতায়

এর মাঝে একটি সমীক্ষায় প্রকাশিত হয়ে গিয়েছিল যে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর শাসনকালে মানুষ খরচ কমিয়ে দিয়েছেন অর্থাৎ তাদের আয় হ্রাস পেয়েছে। এই রিপোর্ট প্রকাশিত হ‌ওয়ায় অনেকটাই অস্বস্তির মধ্যে পড়ে গিয়েছিলো কেন্দ্রীয় সরকার।

মনমোহন সিংয়ের শাসনে ২০১১-১২ সালের সমীক্ষার মাধ্যমে জানা গিয়েছিলো, দেশে গরিবের সংখ্যা প্রায় ২৭ কোটি রয়েছে। বর্তমানে নীতি আয়োগের এক কর্তা বলেছেন, “শ্রমিকদের তথ্য থেকে মনে করা হচ্ছে সারা দেশজুড়ে গরীবের সংখ্যা এখন রয়েছে অন্তত ৩৫ কোটির মতো।”

Related Articles

Back to top button