নিউজপলিটিক্সরাজ্য

পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের বাড়িতে হঠাৎ হাজির বিজেপি বিধায়ক। বাড়ছে জল্পনা।

নিজস্ব প্রতিবেদন: একুশের ভোটে জয়জয়কার তৃণমূলের। এই ভোটের আগে জল্পনা গাঢ় হয়েছিলো যে এবারে বাংলায় পরিবর্তনের হাওয়া বইতে শুরু করে দিয়েছে। যার দরুন অনেকেই রাজনৈতিক কেরিয়ার বজায় রাখার জন্য জয় নিশ্চিত জেনে তৃণমূল থেকে বেরিয়ে এসে যোগদান করেছিলেন বিজেপিতে। বিজেপির নেতারাও তাদের জনসভা, রোড শো’তে কাতারে কাতারে মানুষের ভীড় দেখে আত্মবিশ্বাসে বলীয়ান হয়ে উঠেছিলো।

অমিত শাহ স্লোগান দিয়েছিলেন, ‘ইস বার দোশো পার।’ কিন্তু হয়তো ভীতরে ভীতরে অন্য সিদ্ধান্ত নিয়ে রেখেছিলেন আপামর বাংলার মানুষজন। একুশের ভোটের রেজাল্টে দেখা গিয়েছে বিজেপির দখলে মাত্র ৭৭ টা সীট , সেখানে তৃণমূল ২১৩ টি সীট পেয়ে আবার তাদের বিজয়রথ ছুটিয়েছে বাংলা জুড়ে। এর পরেই বিজেপির বেশীরভাগ কর্মী সমর্থকরা তৃণমূলে আসার জন্য হুড়োহুড়ি লাগিয়ে দিয়েছেন।

আরও পড়ুন-“মুকুল রায়কে কেন্দ্রীয় এজেন্সি দিয়ে ভয় দেখানো হয়েছিল”- তৃণমূলের প্রত্যাবর্তন করেই বিজেপির বিরুদ্ধে সরব মুকুল পুত্র শুভ্রাংশু

দীর্ঘ চারবছর বিরহের পরে আবার তৃণমূলে যোগদান করেছেন মুকুল রায় এবং তাঁর পুত্র শুভ্রাংশু রায়। বিধানসভায় বাংলায় বিজেপির ঠোক্কর খাওয়ার পরেই বিজেপি ছেড়ে বেরিয়ে এসে দলে দলে সমর্থকরা নাম লেখাচ্ছেন তৃণমূলে। এবার তৃণমূলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের বাড়িতে গিয়ে জল্পনা বাড়ালেন বিজেপির আরেক বিধায়ক। কয়েকদিন আগেই কুণাল ঘোষের সাথে সাক্ষাৎ করতে গিয়েছিলেন বিজেপির বেসুরো বিধায়ক রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়।

আরও পড়ুন-“রক্ত ঝরলেও কেউ পাশে থাকেনা।”- বিজেপির অস্বস্তি কয়েকগুণ বাড়িয়ে ফেসবুকে পোস্ট করলেন রূপা গঙ্গোপাধ্যায়

এবার পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের সাথে দেখা করতে গিয়েছিলেন বিজেপি বিধায়ক মনোজ টিগ্গা। কিন্তু তিনি বলেছেন যে তাঁর এই সাক্ষাৎ শুধুমাত্র সৌজন্য সাক্ষাৎ মাত্র। কিন্তু এটা মানতে রাজী হচ্ছেন না রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা। গতকাল সন্ধ্যায় তৃণমূলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের বাড়িতে গিয়েছিলেন বিজেপি বিধায়ক মনোজ টিগ্গা।

অনেকক্ষণ একে অপরের সাথে কথা বলেছেন। এরফলে অনেকেই মনে করছেন যে শীঘ্রই বিজেপির সাথে সম্পর্ক শেষ করতে পারেন মনোজ বাবু। কিন্তু মনোজ টিগ্গা বলেছেন, “পার্থ বাবুর মাতৃবিয়োগ হয়েছে। তাই উনার সাথে সাক্ষাৎ করে উনাকে সমবেদনা জানাতে গিয়েছিলাম।”

Related Articles

Back to top button