বিরাটিতে তৃণমূল কর্মীর খুনের ঘটনায় এবার অস্বস্তিতে বিজেপি। শুভেন্দু, অর্জুনের সাথে এক‌ই ফ্রেমে উপস্থিত মূল অভিযুক্ত

বিরাটিতে তৃণমূল কর্মীর খুনের ঘটনায় এবার অস্বস্তিতে বিজেপি। শুভেন্দু, অর্জুনের সাথে এক‌ই ফ্রেমে উপস্থিত মূল অভিযুক্ত

নিজস্ব প্রতিবেদন: বিরাটি তে তৃণমূল কর্মীর হত্যাকাণ্ডে এলাকার বিধায়ক চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য প্রথম থেকেই বিজেপির উপরে অভিযোগের আঙুল তুলে ছিলেন। ‌ এই ঘটনায় আরও অস্বস্তিতে পড়েছে বিজেপি। তার কারণ বিরাটির তৃণমূল কর্মীর খুনের মূল অভিযুক্ত বাবুলালের সাথে দুই বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারী এবং অর্জুন সিং এর একটি ছবি যথেষ্ট ভাইরাল হয়ে উঠেছে। যার ফলে তৃণমূল সরাসরি অভিযোগ করেছে যে মূল অভিযুক্ত বাবুলাল হলো বিজেপি আশ্রিত।

জানা গিয়েছে একুশে জুলাই বিরাটির বণিক মোড়ে গুলি করে খুন করা হয় শুভ্রজিৎ দত্ত ওরফে পিকুনকে। এই ঘটনায় স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্ব দাবি করেছে যে বিজেপি আশ্রিত দুষ্কৃতিরাই তাকে গুলি করে হত্যা করেছে। ‌ শুভ্রজিৎ এর বয়স ৩৮ বছর। সেই এলাকার সক্রিয় তৃণমূল কর্মী বলে পরিচিত ছিল।

আরও পড়ুন-আজ বিকালে রাজ্যপালের সাথে রাজভবনে দেখা করতে চলেছেন বিধানসভার স্পিকার বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু কি কারণে? উঠলো জল্পনা

এই ঘটনা প্রসঙ্গে স্থানীয় তৃণমূল বিধায়ক চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য বলেছেন, “বর্তমানে বিজেপি অভিযোগ করছে যে তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বে এর ফলে এই ঘটনা ঘটেছে। কিন্তু বর্তমানে তৃণমূলের কোনরকম গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব নেই ‌। আমি ২০১৬ সালে এই কেন্দ্রে হেরে গিয়েছিলাম, কিন্তু একুশের ভোটে আমি জিতে বিধায়ক হয়েছি। যদি গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব থাকতো, তাহলে আমার জেতা সম্ভবপর হত না।

আরও পড়ুন-কালীঘাটে প্রশান্ত কিশোর, অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় এবং সুব্রত বক্সীর বৈঠকের কথাবার্তা ফাসঁ। রেকর্ডার ধরলেন মুখ্যমন্ত্রী।

এই ঘটনায় বাবুলালের সাথে বিজেপি নেতাদের দেখা গিয়েছে। বহুদিন থেকেই বাবুলালকে এলাকার মানুষ কুখ্যাত দূষ্কৃতী হিসাবেই জানে। বিজেপির মদতে ও এলাকায় সন্ত্রাস চালিয়ে বেড়ায়।”পুলিশ জানিয়েছে একুশে জুলাই যেদিন এই ঘটনা ঘটেছে, সেদিন ওই দুষ্কৃতী বাবুলাল সিংকে বেশ কয়েকজন ব্যাপক মারধর করেছিল।

আহত বাবুলালকে নিমতা থানার পুলিশ উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে দিয়েছিল। তাই এই ঘটনায় বাবুলালের যোগ আছে কিনা তা তদন্ত করে দেখছে পুলিশ। ‌