বিজেপির ভাবমূর্তি বাঁচাতে জে পি নাড্ডার বাড়িতে হাইভোল্টেজ বৈঠক বিজেপির।

বিজেপির ভাবমূর্তি বাঁচাতে জে পি নাড্ডার বাড়িতে হাইভোল্টেজ বৈঠক বিজেপির।

নিজস্ব প্রতিবেদন: একুশের ভোটে তৃণমূলের কাছে পর্যুদস্ত হয়েছে বিজেপি। বিজেপির তাবড় তাবড় নেতারা বাংলার মাটি কামড়ে টড়ে থেকেও আশানুরূপ ফল করতে পারেননি বাংলার মাটিতে। মাত্র ৭৫ টি সীট রয়েছে বর্তমানে তাদের দখলে। একুশের ভোটে বাংলায় যথেষ্ট ইমেজ ভরাডুবি হয়েছে বিজেপির।

এবার সেই ইমেজ আবার সুদৃঢ় করতে উঠেপড়ে লেগেছে বিজেপি। এমনিতেই গত কয়েকদিন ধরেই যথেষ্ট অস্বস্তিতে রয়েছে বিজেপি। বিজেপির বেশ কিছু নেতা নেত্রীরা তৃণমূলে যাওয়ার আবেদন করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে। মুকুল রায় বেসুরো হয়ে উঠেছেন।

আরও পড়ুন-মুকুল রায়ের বাড়িতে হঠাৎ উপস্থিত সৌমিত্র খাঁ। শুরু হল জল্পনা।

এই পরিস্থিতিতে ২০২২ সালে উত্তর প্রদেশ সহ বেশ কয়েকটি রাজ্যে নির্বাচন রয়েছে। এই নির্বাচন উপলক্ষে এবার আসরে নেমেছে পদ্মফুল শিবির। সমগ্র দেশের শীর্ষস্থানীয় বিজেপি নেতৃত্বদের নিয়ে বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জে পি নাড্ডা তার বাড়িতে একটি হাইভোল্টেজ বৈঠক সম্পন্ন করেছেন। এই বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন বিজেপির বিভিন্ন মোর্চা সভাপতিরা।

আরও পড়ুন-হঠাৎ করেই বিজেপির হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ ছাড়লেন বিজেপি সাংসদ সৌমিত্র খাঁ। শুরু জল্পনা।

জানা গিয়েছে নাড্ডার বাড়িতে এই বৈঠক দীর্ঘক্ষন ধরে সম্পন্ন হয়েছে। দুইদিন ধরে এই বৈঠকে নানান কর্মসূচি গ্রহণ করেছে বিজেপি। আপাতত ধুলিস্মাৎ হতে থাকা ইমেজ কিভাবে পুনরুদ্ধার করা যায় সেই বিষয়ে বৈঠক সম্পন্ন হয়েছে। করোনার এই ভয়াবহ আবহে কিভাবে মানুষের পাশে থাকা যায় সেই ব্যাপারে সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে এই বৈঠকে।

আরও পড়ুন-রাজ্যে ভোট পরবর্তী হিংসার প্রসঙ্গে টুইট করলেন রাজ্যপাল। মোক্ষম জবাব দিলেন কুণাল ঘোষ।

আগামী ২০২২ এ মণিপুর, উত্তরপ্রদেশ, পাঞ্জাব, উত্তরাখন্ড, গোয়াতে নির্বাচন রয়েছে। সেই নির্বাচনের দিকে লক্ষ্য রেখে কিভাবে আবার জনসাধারণের মাঝে সেই মর্মাদা পুনঃপ্রতিষ্ঠা করা যায় সেই মর্মে উক্ত বৈঠকে দীর্ঘক্ষণ আলোচনা হয়েছে।