নিউজ

হঠাৎ ত্রিপুরা গেলেন রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়। উঠলো তীব্র জল্পনা।

নিজস্ব প্রতিবেদন: একুশের ভোটে বাংলার মাটিতে ক্ষমতা দখলের পর ত্রিপুরার পাখির চোখ এবার আগামী ২০২৩ এর ত্রিপুরার বিধানসভা নির্বাচনে ত্রিপুরার ক্ষমতা দখল। বর্তমানে ত্রিপুর বিপ্লব দেবের সরকারকে পর্যুদস্ত করে ত্রিপুরার মাটিতে জোড়াফুল প্রস্ফূটিত করতে বদ্ধপরিকর তৃণমূল কংগ্রেস। গত শনিবার ত্রিপুরার মাটিতে আক্রান্ত হয়েছিলেন তৃণমূলের যুবনেতা দেবাংশু ভট্টাচার্য, সুদীপ রাহা, জয়া দত্ত সহ তৃণমূলের বেশ কিছু কর্মী সমর্থকরা।

গতকাল আবার ত্রিপুরার মাটিতে র‌ওনা দিয়েছেন তৃণমূলের সাংসদ অর্পিতা ঘোষ, কাকলি ঘোষ দস্তিদার, দোলা সেন এবং প্রতিমা মন্ডল, অপরূপা পোদ্দার, প্রসূন বন্দ্যোপাধ্যায়, আবু তাহের খান, দোলা সেন। দোলা সেন, কয়েকদিন আগেই কুণাল ঘোষ, ব্রাত্য বসুর সাথে গিয়েছিলেন। এই পরিস্থিতিতে তৃণমূলের এই সাংসদদের ত্রিপুরা র‌ওনা হ‌ওয়া অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা।

আরও পড়ুন – রাত ১১ টা থেকে নাইট কার্ফু। আর কি কি বিধিনিষেধ দিলো রাজ্য সরকার?

এই উত্তপ্ত পরিস্থিতিতে হঠাৎ ত্রিপুরার মাটিতে পা রাখলেন বিজেপি নেতা রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়। যদিও তিনি খাতায় কলমে বিজেপি নেতা থাকলেও বর্তমানে বারবার বিজেপির বিরুদ্ধাচারণ করছেন তিনি। বেশ কয়েকবার বিজেপির বিরুদ্ধে কথা বলে বিজেপি কর্মীদের বিরাগভাজন হয়েছেন তিনি। ‌ এর আগে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের সাথে সাক্ষাৎ করেছিলেন তিনি যার ফলে জল্পনা সৃষ্টি হয়েছিল যে খুব শীঘ্রই তিনি তৃণমূলে প্রত্যাবর্তন করতে চলেছেন। কিন্তু এই প্রসঙ্গে রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়কে তৃণমূলের ফিরিয়ে নিতে একদমই নারাজ আপামর তৃণমূল সমর্থকরা।

রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে ডোমজুড়ের মাটিতে একাধিক জায়গায় পোস্টার দিয়েছে তৃণমূল কর্মী সমর্থকরা। যদিও সরাসরি রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় কোন মন্তব্য করেননি। কিন্তু এই উত্তপ্ত পরিস্থিতিতে হঠাৎ ত্রিপুরার মাটিতে তিনি কেন পদার্পণ করলেন সেই বিষয়ে যথেষ্ট জল্পনা সৃষ্টি হয়েছে। যদিও রাজ্যের প্রাক্তন সেচমন্ত্রী দাবি করেছেন যে তিনি কোন রাজনৈতিক কারণে ত্রিপুরার মাটিতে পা রাখেন নি।

আরও পড়ুন –“বিদেশে গিয়ে দেশের সংস্কৃতি ভুলে গেলেন?”- বাথটাবে ডোবানো নগ্ন শরীরের দৃশ্য পোস্ট করে নেটিজেনদের কটাক্ষের শিকার কঙ্গনা

রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন, “আমি কোনরকম রাজনীতির আলোচনা করতে রাজি নই। ত্রিপুরার মাটিতে একটা সরকার রয়েছে যাকে মানুষ ভোট দিয়ে নির্বাচিত করেছে। আমি কোন রাজনৈতিক কারণে এখানে আসিনি, আমি শুধুমাত্র এসেছি ত্রিপুরেশ্বরী মন্দিরে পুজো দিতে । এর সাথে দয়া করে রাজনীতিকে জড়িয়ে দেবেন না।”

Related Articles

Back to top button